সিরিয়ায় ‘ইসলামিক স্টেটের’ পতন ঘটেছে, দাবি কুর্দি বাহিনীর | বিশ্ব | DW | 23.03.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সিরিয়া

সিরিয়ায় ‘ইসলামিক স্টেটের’ পতন ঘটেছে, দাবি কুর্দি বাহিনীর

মার্কিন সমর্থিত কুর্দি বাহিনী জানিয়েছে যে সিরিয়ায় আন্তর্জাতিক জঙ্গি গোষ্ঠী ‘ইসলামিক স্টেটের’ সর্বশেষ ঘাঁটিটিরও পতন ঘটেছে৷ কুর্দি সেনারা এই জয়কে আখ্যা দিয়েছে ‘এক ঐতিহাসিক মুহূর্ত’ হিসেবে৷

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স (এসডিএফ) শনিবার সিরিয়ায় ‘ইসলামিক স্টেটের' (আইএস) বিরুদ্ধে বিজয় ঘোষণা করেছে৷ সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলে ইসলামিক স্টেটের সর্বশেষ ঘাঁটিটির পতন ঘটানোর মাধ্যমে এই বিজয় অর্জন করেছেন তারা৷
এই ঘোষণার মাধ্যমে কার্যত জঙ্গি গোষ্ঠীটির স্বঘোষিত খেলাফতের চূড়ান্ত পতন ঘটলো৷ ২০১৪ সালে সিরিয়া এবং ইরাকের কিছু অংশ দখল করে খেলাফত ঘোষণা করেছিল আইএস৷ 

এসডিএফ-এর মুখপাত্র মুস্তফা বালি টুইটারে এই বিজয় ঘোষণা করেন:
- ‘‘বাঘিয়ুজ মুক্ত করা হয়েছে৷ দায়েসের বিরুদ্ধে সামরিক বিজয় নিশ্চিত হয়েছে,'' লিখেছেন তিনি৷ আরবি ভাষায় আইএসকে দায়েস বলা হয়৷
- এসডিএফ জানিয়েছে তথাকথিত খেলাফত পুরোপুরি শেষ করে দেয়া হয়েছে এবং আঞ্চলিকভাবে আইএস শতভাগ পরাজিত হয়েছে
- বিজয়ের পর আইএস-এর বিরুদ্ধে যুদ্ধে নিহত হাজার হাজার শহিদের কথাও স্মরণ করেছেন তিনি৷

আইএস-এর ‘মতাদর্শ এখনো রয়ে গেছে'

তবে খেলাফতের পতন ঘটলেও আইএস-এর মতাদর্শ এখনো রয়ে গেছে বলে মনে করেন এসডিএফ-এর বৈদেশিক সম্পর্ক বিষয়ক প্রধান আব্দেল করিম উমর৷ জার্মান বার্তাসংস্থা ডিপিএকে তিনি বলেন, ‘‘আমরা সামরিকভাবে দায়েশের পতন ঘটিয়েছি৷ তাদের খেলাফত শেষ হয়ে গেছে৷ তবে, দায়েশের ‘স্লিপিং সেল' এখনো আছে এবং যে অঞ্চল তারা দীর্ঘদিন শাসন করেছিল, সেখানে তাদের মতাদর্শ এখনো রয়ে গেছে৷''

এদিকে, এসডিএফ শতভাগ বিজয় ঘোষণার পরও বাঘিয়ুজে এখনো বিমান হামলা এবং গোলাগুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে বলে দাবি করেছেন সিরিয়া এবং কুর্দি বিষয়ক বিশ্লেষক মোটলু সিভিরোঘলু৷ তিনি এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও টুইটও করেছেন৷

উল্লেখ্য, আইএস শুরুতে আল-কায়েদার একটি অংশ হিসেবে কাজ করলেও সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর তা বিচ্ছিন্ন হয়ে আলাদা একটি জঙ্গি গোষ্ঠী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়৷ ২০১৪ সালে সেটি সিরিয়া এবং ইরাকে বেশকিছু অংশ দখল করে নিয়ে নিজস্ব খেলাফত ঘোষণা করে৷ পরবর্তীতে সংশ্লিষ্ট অঞ্চলসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে একাধিক ভয়াবহ জঙ্গি হামলার দায় স্বীকার করে উগ্র ইসলামপন্থি গোষ্ঠীটি৷ তবে ২০১৭ সাল থেকে তাদের পতন শুরু হয় যা শনিবার চূড়ান্ত রূপ পেল৷

এআই/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন