সিরিয়ায় ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র হানা | বিশ্ব | DW | 01.03.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সিরিয়া

সিরিয়ায় ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র হানা

সিরিয়ার উপর ক্ষেপণাস্ত্র হানা ইসরায়েলের। অধিকাংশ ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত করার আগেই ধ্বংস করা হয়েছে বলে দাবি সিরিয়ার সেনার।

গত ৬ ফেব্রুয়ারি সিরিয়ায় ইসরায়েলি রকেট হামলার ছবি।

গত ৬ ফেব্রুয়ারি সিরিয়ায় ইসরায়েলি রকেট হামলার ছবি।

রোববার সন্ধ্যায় গোলান হাইটস থেকে দামাস্ক লক্ষ্য করে ইসরায়েল একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে বলে দাবি সিরিয়ার সরকারি মিডিয়ার।

সরকারি সংবাদসংস্থা সানা জানিয়েছে, ''ইসরায়েল অধিকৃত গোলান হাইটস থেকে দামাস্ক নির্দিষ্ট লক্ষ্যে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে। সিরিয়ার এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম অধিকাংশ ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করতে পেরেছে। কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর নেই।'' 

২০১১ সালের গৃহযুদ্ধের পর থেকে সিরিয়ায় ইরানপন্থি ও হেজবোল্লাহদের লক্ষ্য করে একাধিক আক্রমণ করেছে ইসরায়েল। কয়েকদিন আগেই অ্যামেরিকাও সিরিয়া-ইরাক সীমান্তে ইরানপন্থি মিলিশিয়ার উপর আক্রমণ চালিয়েছিল।

যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক সিরিয়ান অবজারভেটারি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, দামাস্কের দক্ষিণে ক্ষেপণাস্ত্র হানা চালানো হয়। এখানেই ইরানের রেভলিউশনারি গার্ড ও হেজবোল্লাহদের ঘাঁটি।

ইসরায়েলের সামরিক মুখপাত্র এনিয়ে কোনো কথা বলতে চাননি। তবে ইসয়ালের সরকারি সংস্থা কান জানিয়েছে, সেখানকার সেনা কর্তারা রোববার সন্ধ্যায় আলোচনায় বসোছিলেন। তাঁরা গালফ অফ ওমানে ইসরায়েলের একটি জাহাজে ইরানের আক্রমণ নিয়ে আলোচনা করেন। ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, তাঁদের পণ্য জাহাজে ইরানই আক্রমণ শানিয়েছিল বলে তাঁর বিশ্বাস। সিরিয়ায় ইরানের দখলদারি ঠেকাতে ইসরায়েল এখন প্রায় প্রতি সপ্তাহেই হানা দিচ্ছে।

ইসরায়েলের দাবি, ইরানের বাহিনীর সিরিয়ায় থাকার কোনো অধিকার নেই। ইরান যাতে সেখানে কোনো প্রভাব বিস্তার করতে না পারে, তার জন্য ইসরায়েল সক্রিয়। পশ্চিমা গোয়েন্দা সূত্রের মতে, ইরানের বিরুদ্ধে ছায়াযুদ্ধ চালাচ্ছে ইসরায়েল।

জিএইচ/এসজি(এপি, রয়টার্স, এএফপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়