সিরিয়ালে অভিনেত্রী নয়, তালেবান নির্দেশিকা | বিশ্ব | DW | 22.11.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তান

সিরিয়ালে অভিনেত্রী নয়, তালেবান নির্দেশিকা

টিভির জন্য ধর্মীয় নির্দেশিকা জারি করলো তালেবান সরকার। তবে তারা বলছে, এটা বাধ্যতামূলক নয়।

তালেবান শাসনে নারীদের আগেকার অধিকার সমানে কমছে।

তালেবান শাসনে নারীদের আগেকার অধিকার সমানে কমছে।

রোববার তালেবান এই ধর্মীয় নির্দেশিকা জারি করেছে। সেখানে বলা হয়েছে, টিভি সিরিয়াল বা নাটকে কোনো অভিনেত্রী থাকতে পারবেন না। অভিনেতার উন্মুক্ত কাঁধের ছবিও দেখানো যাবে না। এই নীতিনির্দেশিকা জারি করেছে প্রমোশন অফ ভার্চু ও প্রিভেনশন অফ ভাইস মন্ত্রণালয়। নির্দেশিকাতে এটাও বলা হয়েছে, মহানবী(সাঃ)-কে কোনোভাবে চিত্রিত করা যাবে না।

দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর তালেবান অবশ্য বলেছিল যে, তারা এবার মধ্যপন্থা অনুসরণ করবে। আগেরবারের থেকে অনেক বেশি নমনীয় থাকবে।

নির্দেশিকায় কী আছে

মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসলাম বা আফগান মূল্যবোধের বিরোধী কিছু দেখানো যাবে না। মুসলিম নারী সাংবাদিকরা টিভি-র সামনে এলে তাদের অবশ্যই হিজাব পরতে হবে। পুরুষদের শরীরের বিবরণ দেয়া যাবে না, অনাবৃত কাঁধ দেখানো যাবে না। নারীদের কোনো সিরিয়াল বা নাটকে রাখা যাবে না।

মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সংবাদসংস্থা এএফপি-কে বলেছেন, এটা নিয়ম নয়, ধর্মীয় নির্দেশিকা মাত্র। তালেবানের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, এই নির্দেশিকা মানা বধ্যতামূলক নয়। এগুলি হলো প্রস্তাব। প্রচারের সময় এগুলি মাথায় রাখা উচিত।

মিডিয়ার সঙ্গে তালেবানের সম্পর্ক

গত অগাস্টে আফগানিস্তানে তালেবান ক্ষমতায় আসে। কুড়ি বছর আগে অ্যামেরিকার নেতৃত্বাধীন বাহিনী তাদের ক্ষমতাচ্যুত করেছিল। সেসময় তালেবান টিভি, সিনেমা ও অন্য প্রায় সব ধরনের মিডিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। সেসময় শুধু চালু ছিল 'ভয়েস অফ শরিয়া' নামে একটি রেডিও চ্যানল।

গত দুই দশক ধরে তুলনামূলকভাবে সংবাদমাধ্যমগুলো স্বাধীনতা পায়। প্রচুর স্থানীয় টিভি নেটওয়ার্ক চালু হয়। তারা গানের প্রতিযোগিতা, তুরস্ক ও ভারতের সোপ অপেরা সহ বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান দেখাতে থাকে।

জিএইচ/এসজি(এএফপি, ইএফই)