সিরিয়ার উপকূলে জার্মান জাহাজ - শুধুই কী রুটিন কাজ? | বিশ্ব | DW | 22.08.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

সিরিয়ার উপকূলে জার্মান জাহাজ - শুধুই কী রুটিন কাজ?

সিরিয়ার সমুদ্র উপকূলে অবস্থান করছেন জার্মান গোয়েন্দারা, আর বিভিন্ন তথ্য সরবরাহ করছেন বিদ্রোহীদের৷ সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদকে হটাতে যুদ্ধরত বিদ্রোহীদের এভাবেই সহায়তা করছেন তাঁরা৷

জার্মানির বিদেশ বিষয়ক গোয়েন্দা সংস্থা বিএনডি'র গোয়েন্দারা অবস্থান করছেন একটি জাহাজে৷ সেই জাহাজের অবস্থান সিরিয়ার উপকূলে৷ জাহাজটিতে থাকা প্রযুক্তি ব্যবহার করে সিরিয়ার অভ্যন্তরে ৬০০ কিলোমিটার অবধি সেনাবাহিনীর গতিবিধির উপর নজর রাখছেন গোয়েন্দারা৷ জার্মানির ‘বিল্ড আম সনটাগ' পত্রিকা জানিয়েছে এই তথ্য৷

পত্রিকাটির দাবি, জার্মান গোয়েন্দারা সিরিয়ার সেনাবাহিনীর গতিবিধি সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে সেগুলো মার্কিন এবং ব্রিটিশ কর্মকর্তাদের কাছে সরবরাহ করছেন৷ আর তাঁরা সেগুলো পৌঁছে দিচ্ছেন বিদ্রোহীদের কাছে৷

বিল্ড পত্রিকাটি নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মার্কিন কর্মকর্তার বরাতে জানিয়েছে, জার্মানি'র বিএনডির মতো ‘এত ভালো সূত্র সিরিয়ার অভ্যন্তরে আর কোনো পশ্চিমা গোয়েন্দা সংস্থার নেই৷' জার্মানির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় স্বীকার করেছে, সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে গত কয়েক মাস ধরেই একটি জার্মান জাহাজ অভিযান পরিচালনা করছে৷ তবে জার্মান পত্রিকায় যেভাবে এটিকে ‘গোয়েন্দা জাহাজ' হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে, তা সঠিক নয় বলে জানিয়েছে তারা৷

মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র স্টেফান প্যারিস এই বিষয়ে বলেন, ‘‘এই ব্যাপারে কোনো ধরনের ম্যান্ডেট প্রয়োজন নেই৷ এটা বেসামরিক এবং কেবলমাত্র তথ্য সংগ্রহের উদ্দেশ্যে পরিচালিত যা আমরা নিয়মিতই করে থাকি৷ এই নৌযানের অভিযানের মেয়াদ এই বছরের শেষ নাগাদ পর্যন্ত৷ এই নৌযানের কার্যসূচিতে লিখিতভাবে দেওয়াই আছে যে এটি তথ্য সংগ্রহ করতে পারবে৷ এবং সেটাই হচ্ছে এটার মিশন৷''

সিরিয়ার কাছে অবস্থিত জাহাজটির অভিযান সম্পর্কে এর চেয়ে বিস্তারিত কিছু বলতে নারাজ স্টেফান প্যারিস৷ তিনি বলেন, ‘‘অভিযানের বিস্তারিত তথ্য, উদ্দেশ্য ও ফলাফল সম্পর্কে আমি বরাবরের মতোই কোন কিছু বলতে পারছি না৷''

‘বিল্ড আম সনটাগ' পত্রিকায় প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, জার্মান গোয়েন্দারা তুরস্কের আদানা শহরে স্থাপিত ন্যাটোর ঘাঁটিতেও সক্রিয় রয়েছে৷ বিএনডি'র নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বিল্ডকে জানিয়েছেন, ‘‘আসাদ প্রশাসনের পতনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখায় আমরা গর্ববোধ করতে পারি৷''

উল্লেখ্য, এর আগে সিরিয়া সংকট নিরসনে সেদেশে সামরিক হস্তক্ষেপ সঠিক পদক্ষেপ হবে না বলেই মত প্রদান করেছিল বার্লিন৷ কিন্তু চলতি মাসের শুরুর দিকে জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী থমাস দেমেজিয়ের বলেছিলেন, মানবিক সাহায্য বা ‘লজিস্টিকাল' সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে সিরিয়াকে অন্যভাবে সাহায্য করবে জার্মানি৷

প্রতিবেদন: মার্সেল ফ্যুর্স্টেনাও, আরাফাতুল ইসলাম (এএফপি)

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন