সিরিয়াকে চাপ দিতে পুটিনকে ম্যার্কেল, মাক্রোঁর ফোন | বিশ্ব | DW | 26.02.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সিরিয়া

সিরিয়াকে চাপ দিতে পুটিনকে ম্যার্কেল, মাক্রোঁর ফোন

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল ও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ রবিবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের সঙ্গে কথা বলেছেন৷ যুদ্ধবিরতি কার্যকর করতে সিরিয়াকে চাপ দিতে পুটিনের প্রতি আহ্বান জানান তাঁরা৷

default

ফাইল ছবি

সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের অনতিদূরে অবস্থিত পূর্ব গুটায় অভিযান চালাচ্ছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী৷ এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে সেখানে আকাশ থেকে বোমা হামলা চালানো হচ্ছে৷ এসব অভিযানে সোমবার সকাল পর্যন্ত ৫৪০ জনের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছে বলে জানিয়েছে লন্ডনভিত্তিক সংগঠন সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস বা এসওএইচআর৷ নিহতদের মধ্যে ১৩০ জনের বেশি শিশু রয়েছে৷ এসওএইচআর বলছে, সোমবার এক বোমা হামলায় একই পরিবারের নয়জনসহ ১০ জন নিহত হয়েছে৷

উল্লেখ্য, পূর্ব ঘুটা হচ্ছে রাজধানী দামেস্কের কাছে থাকা সরকারবিরোধীদের শেষ ঘাঁটি৷ সেখানে চলা অভিযানকে অনেকে ২০১৬ সালে আলেপ্পোতে যে অভিযান চলেছিল তার সঙ্গে তুলনা করছেন৷ পূর্ব গুটায় প্রায় চার লক্ষ নাগরিকের বাস৷ জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস ঐ অঞ্চলের মানুষদের দুর্দশার কথা বোঝাতে গিয়ে ‘পৃথিবীর নরক’ শব্দযুগল ব্যবহার করেছেন৷

পূর্ব গুটায় মানবিক সহায়তা পৌঁছে দিতে জাতিসংঘের উদ্যোগে কয়েক দফা চেষ্টার পর শনিবার একটি যুদ্ধবিরতি প্রস্তাব গৃহীত হয়৷ এর আগে কয়েকবার রাশিয়ার কারণে প্রস্তাবটি পাস করানো যায়নি৷ উল্লেখ্য, সিরিয়া সরকারে অন্যতম ঘনিষ্ঠ সমর্থক রাশিয়া৷ রুশ সামরিক বাহিনীর উপস্থিতিও রয়েছে সে দেশে৷

শনিবার যুদ্ধবিরতি প্রস্তাব গৃহীত হওয়ার পর পূর্ব গুটায় বোমাবর্ষণ কিছুটা কমলেও একেবারে বন্ধ হয়নি৷ তাই যুদ্ধবিরতি পুরোপুরি কার্যকর করতে সিরিয়াকে বাধ্য করতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনকে অনুরোধ জানিয়েছেন ম্যার্কেল ও মাক্রোঁ৷ টেলিফোন আলোচনার সময় তিন নেতা যুদ্ধবিরতি কার্যকরের গুরুত্ব নিয়ে কথা বলেন বলে ম্যার্কেলের কার্যালয় থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে৷ ‘‘তাঁরা (ম্যার্কেল ও মাক্রোঁ) অবিলম্বে আকাশ থেকে চালানো হামলা ও সংঘাত বন্ধ করতে সিরিয়া সরকারের উপর সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের জন্য রাশিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন,’’ বলে বিবৃতিতে জানানো হয়৷

রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার?

সিরিয়ান অ্যামেরিকান মেডিকেল সোসাইটি নামের এক সংস্থা পূর্ব গুটায় একটি হাসপাতাল পরিচালনা করছে৷ সংস্থাটি টুইটারে কয়েকটি ছবি পোস্ট করে লিখেছে, ‘‘রাসায়নিক অস্ত্রের শিকার হয়েছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে এমন ছয় শিশু ও চার নারীসহ ১৬ জন রোগীকে আমাদের ক্যাম্পে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে৷’’

তবে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, সিরিয়ার সরকারের বিরুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ আনতে সশস্ত্র গোষ্ঠীর নেতারা বিষাক্ত উপাদান ব্যবহারের প্রস্তুতি নিচ্ছে৷ পূর্ব গুটার পরিস্থিতির ‘ক্রমেই অবনতি’ ঘটছে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন