সামরিক বাহিনীর হাত থেকে ক্ষমতা নিয়ে নিলেন মুরসি | বিশ্ব | DW | 13.08.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

সামরিক বাহিনীর হাত থেকে ক্ষমতা নিয়ে নিলেন মুরসি

মিশরের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি তাঁর ক্ষমতা ব্যবহার শুরু করলেন৷ সরিয়ে দিলেন ক্ষমতাধর ফিল্ড মার্শাল হুসাইন তানতাউয়িকে৷ একই সঙ্গে বাতিল করলেন সামরিক বাহিনীর হাতে আইন প্রণয়নের ক্ষমতা দেওয়ার ডিক্রি৷

রোববার প্রেসিডেন্ট মুরসির মুখপাত্র এক আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে এই সব সিদ্ধান্তের কথা জানান৷ তিনি জানান, সামরিক বাহিনীর সর্বোচ্চ পরিষদ স্কাফ'এর প্রধান ফিল্ড মার্শাল তানতাউয়ি এবং সামরিক বাহিনীর চিফ অফ স্টাফ জেনারেরল সামি আনানকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে অবসরের পাঠানো হয়েছে৷

তানতাউয়ির জায়গাতে নিয়োগ করা হয়েছে জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল সিসিকে৷ সামরিক বাহিনীর হাতে বাড়তি ক্ষমতা দিয়ে যে সাংবিধানিক নির্দেশ জারি করা হয়েছিল, তাও বাতিল করা হয়েছে৷ এর পাশাপাশি বিচারক মাহমুদ মাক্কিকে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট মুরসি৷

Ägypten Hussein Tantawi und Mohammed Mursi

সামরিক বাহিনীর হাতে আইন প্রণয়নের ক্ষমতা দেওয়ার ডিক্রি বাতিল করেছেন মুরসি

মিশরের জনতার কাছে এই ঘোষণা ছিল একেবারেই অপ্রত্যাশিত৷ কারণ স্কাফ'এর প্রধান হিসেবে ফিল্ড মার্শাল তানতাউয়ি ছিলেন এতদিন ধরে ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে৷ গত ৩০ জুন তাঁর হাত থেকেই প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেন মোহাম্মদ মুরসি৷ মিশরের রাজনীতিতে এতদিন ধরে প্রেসিডেন্ট ও সামরিক বাহিনীর ক্ষমতার মধ্যে একটি টানাটানি লক্ষ্য করা যাচ্ছিল৷ প্রেসিডেন্ট মুরসির এই সিদ্ধান্ত তাই সামরিক বাহিনীর ওপর প্রেসিডেন্টের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা হিসেবে দেখা হচ্ছে৷ তবে সরকারি সংবাদ সংস্থা মেনা জানিয়েছে, সামরিক বাহিনীর অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেই এই রদবদলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুরসি৷

এদিকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর মিশরের আল আজহার মসজিদে দেওয়া এক ভাষণে মুরসি বলেছেন, দেশের স্বার্থের কথা চিন্তা করেই এই রদবদল করা হয়েছে৷ সামরিক বাহিনীকে কোণঠাসা করার কোনো উদ্দেশ্য তাঁর নেই৷ তিনি বলেন, ‘‘আমি তাদের ভালোর কথাই চিন্তা করি৷ আমি চাই তারা জাতির প্রতিরক্ষায় নিজেদের নিয়োজিত করুক৷ আমার এই সিদ্ধান্ত কোনো ব্যক্তিকে লক্ষ্য করে নয়, বরং তা একটি উন্নত ভবিষ্যতের জন্য৷ আমি কোনো প্রতিষ্ঠানকে বিব্রত করতে চাইনি৷''

আরআই / ডিজি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন