সাবেক উপদেষ্টা এম এ মতিনের ওপর ক্ষতিপূরণের আদেশ | বিশ্ব | DW | 04.11.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সাবেক উপদেষ্টা এম এ মতিনের ওপর ক্ষতিপূরণের আদেশ

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল(অব.) এম এ মতিন এবং সাবেক নৌ পরিবহণ সচিবকে ২৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ গুনতে হবে৷ চট্টগ্রাম বন্দরের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মামলার রায়ে আদালত এ আদেশ দিয়েছেন৷

default

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল(অব.) এম এ মতিন

বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৮ সালে চট্টগ্রাম বন্দরে কন্টেইনার টার্মিনালে হ্যান্ডলিং ঠিকাদার হিসেবে কাজ পাওয়ার আবেদন করে এভারেষ্ট এন্টারপ্রাইজ নামে একটি প্রতিষ্ঠান৷ সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে এভারেষ্টকে কাজ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বন্দর কর্তৃপক্ষ৷ কিন্তু ৬ মাস পর তাদের কাজ না দিয়ে দরপত্র বাতিল করা হয় নৌপরিহণ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে৷শুধু তাই নয় পরে আরেকটি প্রতিষ্ঠানকে কাজ দেয়া হয়৷ তখন নৌপরিহণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন উপদেষ্টা এম এ মতিন৷ ২০০৯ সালে উপদেষ্টা এম এ মতিন এবং সেসময়ের নৌ পরিবহণ সচিব শেখ মোতাহার হোসেনের বিরুদ্ধে ২৫ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণের মামলা করে এভারেষ্ট এন্টারপ্রাইজ৷ বৃহস্পতিবার ঢাকার ২য় যুগ্ম জেলা জজ মো. মোহসিনুল হকের এজলাশ এই মামলার রায় দেয়৷ আদালত সাবেক উপদেষ্টা এম এ মতিন এবং সাবেক নৌ পরিবহণ সচিব শেখ মোতাহার হোসেনকে ২৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে বলেছে৷ তারা এভারেষ্টকে এই ক্ষতিপূরণ স্বেচ্ছায় না দিলে তাদের সম্পত্তি বিক্রি করে ক্ষতিপূরণ আদায়ের নির্দেশ দেয়া হয়েছে৷ সাংবাদিকদের একথা জানান এ্যাডভোকেট আশানুর রহমান৷

MA Matin

মতিন ও সাবেক নৌ পরিবহণ সচিবকে ২৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ গুনতে হবে

এভারেষ্ট এন্টারপ্রাইজের মালিক সাহাদাত হোসেন সেলিম বলেন, তিনি দেরিতে হলেও ন্যায়বিচার পেয়েছেন৷ তিনি বলেন, বিশেষ উদ্দেশ্যে দরপত্র বাতিল করা হয়েছিল, যা আদালতের রায়ে প্রমাণিত হয়েছে৷

আইন অনুযায়ী আগামী ২ মাসের মধ্যে এই ক্ষতিপূরণের টাকা পরিশোধ করতে হবে৷ এব্যাপারে সাবেক উপদেষ্টা এম এ মতিনের বক্তব্য জানা যায়নি৷ সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের এই প্রভাবশালী উপদেষ্টা গুরুতর অপরাধ দমন সংক্রান্ত জাতীয় সম্বয় কমিটির চেয়ারম্যানও ছিলেন৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন