সাবধানতা সত্ত্বেও কড়াকড়ি শিথিলের ঘোষণা করলেন ম্যার্কেল | বিশ্ব | DW | 18.06.2020

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

সাবধানতা সত্ত্বেও কড়াকড়ি শিথিলের ঘোষণা করলেন ম্যার্কেল

করোনা সংকটে জার্মানির পরিস্থিতি এখনো স্থিতিশীল থাকায় জার্মানির ফেডারেল ও রাজ্য সরকারগুলি কিছু বিধিনিয়ম শিথিল করার সিদ্ধান্ত নিলো৷ তবে ওষুধ বা টিকা আবিষ্কার পর্যন্ত সাবধানতা বজায় রাখা হবে৷

বুধবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনার পর জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল করোনা সংকটের ক্ষেত্রে পরবর্তী পরবর্তী পদক্ষেপের রূপরেখা তুলে ধরলেন৷ ম্যার্কেল বলেন, এখনো পর্যন্ত কোনো ওষুধ ও টিকা আবিষ্কার না হওয়ায় মৌলিক সাবধানতার বিধিনিয়ম জার্মানিতে আপাতত চালু থাকছে৷ অর্থাৎ মানুষের মধ্যে দেড় মিটার ব্যবধান, দোকানবাজারসহ কিছু জায়গায় মাস্ক পরার নিয়ম ও স্বাস্থ্যবিধির ক্ষেত্রে কড়াকড়ি সার্বিকভাবে বজায় থাকবে৷ কারণ এই সব পদক্ষেপের ফলে জার্মানিতে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে৷ ফলে সেই সাফল্য ত্যাগ করার কোনো কারণ দেখছেন না ফেডারেল ও রাজ্য স্তরের শীর্ষ নেতারা৷ জনসাধারণের উদ্দেশ্যেও সাবধানতা বজায় রাখার আবেদন জানানো হয়েছে৷

সার্বিক বিধিনিয়ম চালু রেখেও কিছু ক্ষেত্রে কড়াকড়ি শিথিল করার কথা ঘোষণা করলেন চ্যান্সেলর ম্যার্কেল৷ যেমন পরিস্থিতির অবনতি না ঘটলে গ্রীষ্মের ছুটিরপর সব রাজ্যে স্কুল খোলা হবে৷ তবে পুরোদমে স্কুল চালু হতে আরও কিছু সময় লাগবে৷ শিক্ষার বিষয়টি রাজ্যের এক্তিয়ারে থাকায় বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী ও বিশেষজ্ঞদের এক বৈঠকে সে বিষয়ে স্পষ্ট দিশা পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে৷

খেলাধুলা, সংগীত বা অন্য সব ক্ষেত্রে বড় আকারের অনুষ্ঠানের উপর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ কমপক্ষে অক্টোবর মাসের শেষ পর্যন্ত বাড়ানো হচ্ছে৷ এভাবে মানুষের ভিড় যতটা সম্ভব কম রাখতে চায় ফেডারেল ও রাজ্য সরকারগুলি৷ এমন অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও সংক্রমণ ঘটলে সব দর্শকদের চিহ্নিত করে যোগাযোগ করা কার্যত অসম্ভব৷ তাই এ ক্ষেত্রে এখনো কোনো ঝুঁকি নেওয়া হচ্ছে না৷ তবে কোনো রাজ্যে পরিস্থিতির উন্নতি হলে সেখানে এমন কড়াকড়ি তুলে নেওয়া হতে পারে৷

মঙ্গলবার জার্মানিতে করোনা-অ্যাপ চালু হওয়ায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন ম্যার্কেল৷ তাঁর মতে, সূচনা ভালোই হয়েছে, এবার সেই হাতিয়ারকে কার্যকর করো তোলার পালা৷ সংক্রমণ চিহ্নিত করার কাজে সাহায্য করতে যে সব নাগরিক স্বেচ্ছায় এই অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন, তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান ম্যার্কেল৷ উল্লেখ্য, বুধবার দুপুরের মধ্যেই ৭০ লাখ বার এই অ্যাপ ডাউনলোড করা হয়েছে বলে সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে৷

জার্মানির ফেডারেল কাঠামোর আওতায় রাজ্য সরকারগুলির নিজস্ব ক্ষমতা প্রয়োগের সুযোগ থাকলেও করোনা সংকটের শুরু থেকে ফেডারেল ও রাজ্য স্তরের মধ্যে মৌলিক বিষয়গুলির ক্ষেত্রে সফল সমন্বয়ের প্রশংসা করেন বাভেরিয়ার মূখ্যমন্ত্রী মার্কুস স্যোডার৷ তাঁর মতে, সাবধানতা বজায় রেখে যেভাবে বিধিনিয়ম ধাপে ধাপে শিথিল করা হচ্ছে, সেটাই সঠিক পথ৷

করোনা সংকটের অর্থনৈতিক ধাক্কা সামলাতে পদক্ষেপ সম্পর্কেও বুধবারের বৈঠকে ফেডারেল ও রাজ্য সরকারের মধ্যে ঐকমত্য দেখা গেছে৷ ১৩,০০০ কোটি ইউরো অঙ্কের অর্থনৈতিক প্রণোদনার ফলে আগামী মাসগুলিতে অর্থনীতি আবার চাঙ্গা হয়ে উঠবে বলে শীর্ষ নেতারা আশা প্রকাশ করেন৷

এসবি/কেএম (ডিপিএ, রয়টার্স)

১৪ জুনের ছবিঘরটি দেখুন...

সংশ্লিষ্ট বিষয়