সাদিক খান: লন্ডনের প্রথম মুসলিম মেয়র | বিশ্ব | DW | 14.05.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

সাদিক খান: লন্ডনের প্রথম মুসলিম মেয়র

বাবা ছিলেন বাস চালক৷ দশ সদস্যের সংসার চালাতে মাকে রাত জেগে করতে হতো সেলাই৷ এমন এক পরিরবার থেকে উঠে আসা সাদিক খানই ইতিহাস গড়েছেন৷ প্রথম মুসলমান হিসেবে লন্ডনের মেয়র হয়েছেন তিনি৷

পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত সাদিক খান অবশ্য নিজের মুসলিম পরিচয়টাকে বড় করে না দেখিয়ে, ‘গর্বিত লন্ডনবাসী' হিসেবেই নিজেকে তুলে ধরেছেন সবসময়৷ গত ৫ মে লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে মেয়র নির্বাচনে বিশাল ব্যবধানে জিতে লন্ডনের নগরপিতার দায়িত্ব পেয়েছেন তিনি৷ ভোট প্রার্থনার প্রতিটি অনুষ্ঠানে সাদিক খান বলেছিলেন, ‘‘নির্বাচিত হলে আমি লন্ডনের সব মানুষের মেয়র হবো''৷ পরে মেয়র হিসেবে শপথ নেয়ার সময়ও সে কথাই বলেছেন আইনজীবী ও মানবাধিকারকর্মী সাদিক খান৷

লন্ডনের মেয়র হিসেবে ইতিমধ্যে শপথও নিয়েছেন পাকিস্তান থেকে ১৯৭০ সালে ব্রিটেনে পাড়ি জমানো আমানুল্লাহ খান ও সেহেরুন খান দম্পতির পঞ্চম সন্তান সাদিক৷ আট ভাই-বোনের মধ্যে পঞ্চম সাদিকের বিজ্ঞান নিয়ে লেখাপড়া করার ইচ্ছে ছিল৷ স্কুল জীবনে সব বিষয়ে প্রশ্ন তোলা এবং তর্ক করার অভ্যাস ছিল বলে এক শিক্ষক তাঁকে আইনজীবী হওয়ার পরামর্শ দেন৷ শেষ পর্যন্ত আইনজীবীই হয়েছেন সাদিক খান৷ লেবার পার্টির রাজনীতিতে যোগ দিয়ে রাজনৈতিক দূরদর্শিতা ও জনপ্রিয়তার সুবাদে লন্ডনের মেয়রও হলেন তিনি৷

নির্বাচিত হয়ে তাঁকে ভোট দেয়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সাদিক খান৷ পাশাপাশি আগামী চারবছর লন্ডনের সব মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করার অঙ্গীকারও করেছেন তিনি৷

এসিবি/ডিজি (নএএফপি, রয়টার্স, বিবিসি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন