সাগরতল থেকে প্রত্নসামগ্রী তুলে আনলেন পুটিন | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 12.08.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

সাগরতল থেকে প্রত্নসামগ্রী তুলে আনলেন পুটিন

আগামী বছর আসছে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন৷ তার আগে একের পর এক চমক দেখিয়ে মিডিয়ার খোরাক হতে চান প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুটিন৷ এবার সাগরের গভীর থেকে তুলে আনলেন প্রত্নতাত্বিক বস্তু৷

default

স্ত্রী লুডমিলার সঙ্গে ভ্লাদিমির পুটিন

একসময়কার কেজিবি'র কর্মকর্তা পুটিন তাঁর শারীরিক সামর্থ্যের প্রমাণ দিতে চান সবসময়৷ তাই ৫৮ বছর বয়সে এসে নানা কসরত দেখাতে তাঁর জুড়ি নেই৷ ঘোড়ায় চড়ে শিকার করা কিংবা মেরুর ঠান্ডা পানিতে সাঁতার কাটা - সবই পারেন তিনি৷ সাগরের তলে ডুব দেওয়াটাও শিখছেন দিন কয়েক হলো৷ সেদিন তিনি ডুব দিলেন রাশিয়ার দক্ষিণে পুরনো গ্রিক কৃষ্ণ সাগরে৷ আর কি কপাল, ডুব দিতেই পেয়ে গেলেন বহু পুরনো গ্রিক প্রত্নসামগ্রী৷ খুব গভীরে যে ডুব দিয়েছেন পুটিন তা নয়, মাত্র দুই মিটার৷ কিন্তু পানিতে ডুব দিতেই চোখে পড়ে গেল সাগরের তলে কাদায় আটকে থাকা দুটি ফুলদানির ভগ্নাংশ৷ উপস্থিত সংবাদ মাধ্যম কর্মীদের সামনে যখন তিনি তাঁর আবিষ্কার তুলে ধরলেন, তখনও তাঁর স্কুবা ডাইভিং-এর পোশাক থেকে পানি ঝরছিল৷ সংবাদ মাধ্যমগুলোতে প্রধানমন্ত্রীর হাস্যোজ্জ্বল ছবি ছাপিয়ে গেছে অর্থনৈতিক মন্দার খবরকে৷

তবে বিরোধীরা আবার অন্য কিছু খুঁজছেন৷ যেমন NewsRu.com ওয়েবসাইট লিখেছে, পুটিনের সঙ্গে যাঁরা ছিলেন তাঁরা কেউ ডুব দিলেন না, যেন প্রধানমন্ত্রী একাই এই আবিষ্কার করবেন সেজন্য তাঁরা অপেক্ষা করছিলেন৷ তবে পুটিনের বিরোধীদের এই সমালোচনা গায়ে মাখছেন না রাশিয়ার মূল ক্ষমতাধর ব্যক্তি পুটিন৷

প্রতিবেদন: রিয়াজুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

বিজ্ঞাপন