সাংবাদিক ফয়েজ আহমদ আর নেই | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 20.02.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

সাংবাদিক ফয়েজ আহমদ আর নেই

সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, শিল্পাঙ্গন গ্যালারির প্রতিষ্ঠাকালীন চেয়ারম্যান এবং বাসস এর প্রতিষ্ঠাকালীন প্রধান সম্পাদক - এসবই ছিলেন একজন মানুষ যার নাম ফয়েজ আহমদ৷ সোমবার সকালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি৷

default

ফাইল ফটো

প্রায় শতাধিক বইয়ের লেখক এই মানুষটি সোমবার ভোরে সবাইকে ছেড়ে চলে গেছেন৷ সাহিত্যে অবদানের জন্য একুশে পদক, বাংলা একাডেমী ও শিশু একাডেমী পুরস্কারসহ বিভিন্ন পুরস্কার পেয়েছেন তিনি৷

১৯২৮ সালে মুন্সীগঞ্জে জন্মগ্রহণ করা ফয়েজ আহমদের হাত ধরেই পিকিং রেডিও, যেটি বর্তমানে বেইজিং রেডিও নামে পরিচিত, সেখানে বাংলা ভাষায় অনুষ্ঠান প্রচার শুরু হয়েছিল৷

১৯৪৭ সালে দেশভাগের পর কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগ দেন ফয়েজ আহমদ৷ স্বাধিকার আন্দোলন এবং একাত্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধেও সক্রিয় অংশগ্রহণ ছিল তাঁর৷

ফয়েজ আহমদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলনসহ জাতীয় সঙ্কটে ফয়েজ আহমদের ভূমিকার কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী৷ শোক জানিয়েছেন বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়াও৷ এক শোকবার্তায় তিনি বলেন, গণতন্ত্রের মুক্তির দাবির আন্দোলনে ফয়েজ আহমদ জাতির বিবেকের ভূমিকা নিয়েছিলেন৷

ফয়েজ আহমদের প্রথম জানাজা হয় দুপুর ১২টায়, জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে৷ এরপর তাঁর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার সামনে৷

ফয়েজ আহমদের শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী তাঁর মরদেহ বাংলাদেশ মেডিকেলে দান করা হবে৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

ফয়েজ আহমদের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন