1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
লাহোর ভিত্তিক সাংবাদিক আয়েশা হাসানছবি: Ayesha Hasan

ব্যবসা নয়, দায়িত্ব

২৭ ডিসেম্বর ২০১১

পাকিস্তানের তরুণ সাংবাদিক আয়েশা হাসান তাঁর পেশার গুরুত্ব সবার কাছে তুলে ধরতে চান৷ তাঁর দেশে সাংবাদিকতার পেশাতে পুরুষের আধিক্য লক্ষ্য করা যায়৷

https://p.dw.com/p/13ZfS

জার্মানির ফ্রিডরিশ এবার্রট ফাউন্ডেশানের আমন্ত্রণে আয়েশা হাসান এখন ডয়চে ভেলেতে ইন্টার্নশিপ করছেন৷ তিনি ডি ডব্লিউ'এর মার্টিনা ব্যার্ট্রাম-এর সঙ্গে তাঁর ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলেন৷

ডি ডাব্লিউ: পাকিস্তান একটি ইসলামী প্রজাতন্ত্র৷ সেখানে ইসলাম সম্পর্কে লেখালেখি করা কতটা কঠিন?

আয়েশা হাসান: খুবই কঠিন৷ যে কেউ খুব সহজেই লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য বা তারকাদের নিয়ে লিখতে পারেন৷ কিন্তু পাকিস্তানে ধর্ম নিয়ে লেখা কষ্টকর৷ ধরুন আপনি হয়তো নারী নির্যাতন নিয়ে কিছু লিখলেন, অনেক সংগঠন তখন সেই নির্যাতিত নারীর দুর্নাম রটাবে৷ তারা বলবে ঐ নারী অত্যাচারের শিকার নয়, বরং সে নিজেই অপরাধী কারণ তার পোশাক পরিচ্ছদ এবং চালচলন ধর্মীয় অনুশাসনের পরিপন্থি৷ স্বামীর হাতে লাঞ্ছিতা মহিলারাও একই ধরনের নিন্দার সম্মুখীন হন৷

ধর্মীয় সংগঠনগুলি ইসলামি আইনের সঙ্গে সহিংসতার সম্পর্ক নিয়ে লেখালিখি পছন্দ করেনা৷ সাংবাদিকরা এই সব বিষয় নিয়ে লিখলে তাদের সন্দেহের চোখে দেখা হয়৷ কেননা সাংবাদিকদের সম্পর্কে একটা ধারণা রয়েছে যে, তারা ইসলামি আইন পুরোপুরি সমর্থন করেন না৷ ইসলামি সংগঠনগুলি মনে করে, ইসলামি আইন তাদের পক্ষে৷ কিন্তু ইসলাম সহিংসার ধর্ম নয়, কিছু কিছু গ্রুপ ধর্মের নামে অপকর্ম করে থাকে৷

আপনি কখনো কি বিপজ্জনক পরিস্থিতে পড়েছিলেন?

কিছুদিন আগে আমাদের ওয়েব সাইটে কয়েকটি ব্লগে যৌনতা এবং সমকামিতা নিয়ে কিছু লেখা প্রকাশ করেছিলাম৷ অনেক সংগঠন আমাদের ওযেব সাইটটি বয়কটের ডাক দেয়৷ শুধু তাই নয়, তারা পত্রিকা এবং প্রকাশনা সংস্থার বিরুদ্ধে ইন্টারনেট অভিযান শুরু করে৷ তাদের অভিযোগ, আমরা নাকি ধর্ম বিরোধী৷ পাকিস্তানে যে কোন বিষয়ের পক্ষে বা বিপক্ষে জনমত গড়ে তোলা খুবই সহজ৷ কোন সংবাদপত্র, প্রকাশনা সংস্থা বা ব্যক্তি বিশেষ কিংবা সাংবাদিকদের জন্য তা বিপজ্জনক হতে পারে৷ পাকিস্তানিদের খবর অতিরঞ্জিত করারও প্রবণতা রয়েছে৷

আপনি জন্মসূত্রে পাকিস্তানের উত্তর পশ্চিমের খাইবার পাখতুনখাওয়ার বাসিন্দা৷ সেই অঞ্চলটি রাজনৈতিক ভাবে খুবই অস্থিতিশীল৷ রাজনীতি সংক্রান্ত খবর পরিবেশন করতে কিরকম প্রতিকূলতার সম্মুখীন আপনারা হয়ে থাকেন?

রাজনীতি বড় কঠিন এক ব্যপার৷ বিশেষ করে প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সম্পর্কে গবেষণা বা তাদের নিয়ে কিছু প্রকাশ করা মোটেই সহজ নয়৷ ছোটখাটো বিষয় প্রকাশ করা নিয়ে কেউ চাকরি হারাতে পারে আর বড় কিছুর জন্য প্রাণ হারানোও বিচিত্র নয়৷ দোসরা মে তে অ্যাবোটাবাদে ওসামা বিন লাদেন হত্যার অল্প কিছুদিন পর সাংবাদিক সালিম শাহজাদ করাচি নৌঘঁটিতে আক্রমণের পেছনে পাকিস্তানি গোয়েন্দা বাহিনীর সম্ভাব্য যোগ সম্পর্কে লিখেছিলেন৷ এর অল্প কিছুদিন পর ২২ মে নিহত হন এই সাংবাদিক৷ তাই এই ধারণা হতে পারে, সরকার সালিম শাহজাদ হত্যার ব্যপারটি বিশেষ গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করেনি বরং সাংবাদিকতা পেশার ঘাড়ে সব দোষ চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে৷ সাংবাদিকতা ব্যবসা নয়, এটি একটি দায়িত্ব৷

স্বাধীন সংবাদ মাধ্যম পাকিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কী ভাবে সহায়তা করতে পারে?

আমার দৃষ্টিতে সংবাদ মাধ্যম শান্তিপূর্ণ সমাজ গঠনে সব চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে৷ সংবাদ প্রতিষ্ঠানগুলি তথ্য আদান প্রদান করে থাকে, তারা মানুষ ও সমাজের চিত্র তুলে ধরে৷ তারা পাকিস্তানের অভ্যন্তরে এবং প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলির সঙ্গে শান্তি স্থাপন করতে সক্ষম৷ সে জন্যেই আমরা সংঘাতের খবর অতিরঞ্জিত না করে অন্যান্য দেশের সঙ্গে পারস্পরিক সৌহার্দ বৃদ্ধির কথা বলতেই আগ্রহী৷ সাংবাদিকতা সঠিক তথ্য এবং নিখুঁত খবর পরিবেশনার মাধ্যমে রাজনীতিতে আগ্রাসী মনোভাবের অবসান ঘটাতে পারে৷ দু:খজনকভাবে হলেও একথা সত্য যে, পাকিস্তানে প্রচুর উত্তেজনায় ভরা নিম্ন মানের সাংবাদিকতা লক্ষ্য করা যায়৷ সেগুলো হয়তো খবর সৃষ্টি করতে পারে, কিন্তু নিরপেক্ষ সংবাদ পরিবেশনে ব্যর্থ হয়৷ এসব অবশ্যই বন্ধ করা প্রয়োজন৷

সাংবাদিক হিসেবে আপনি কি কি চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছেন?

ভবিষ্যতে আমি আরো কঠিন সব বিষয় নিয়ে লেখার কথা ভাবছি৷ যেমন রাজনীতি বা নারী সংক্রান্ত কোন বিষয় নিয়ে৷ আমি যে প্রদেশে বাস করি, সেখানকার নারীরা নিজেদের অধিকার সম্বন্ধে সচেতন নয়, তাদের অনেকেই শিক্ষার সুযোগ থেকে বঞ্চিত৷ কেউ কেউ পরিবারের পুরুষ সদস্যদের ঘর পরিষ্কার করার সময়ই কেবল সংবাদ মাধ্যমের কাছাকাছি যেতে পারে, কেননা পুরুষরা টেলিভিশন সেটটি সাধারণত: নিজেদের ঘরেই রাখে৷ আমি মনে করি, আমার দায়িত্ব তিনগুণ৷ আমি কেবল একজন সাংবাদিকই নই, আমি একজন পাকিস্তানি এবং একজন পাশতুনও৷ সৎ সাংবাদিকতা সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারে, সামাজিক সমস্যা সম্পর্কে রাজনীতিবিদদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারে৷ পাকিস্তানে সাধারণত নারী সাংবাদিকদের অবহেলা করা হয়৷ বেশিরভাগ কর্মকর্তা মেয়েদের ছোটখাটো বিষয়, যেমন লাইফ স্টাইল, ফ্যাশন বা সামাজিক কোনো বিষয়ের দায়িত্ব দেন৷ সাংবাদিকতায় মেয়েদের গুরুত্ব দিতে হলে এই ধারা এখনি বদলানো প্রয়োজন৷

সাক্ষাত্কার: মার্টিনা ব্যার্ট্রাম

ভাষান্তর: রায়হানা বেগম

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল ফারূক

স্কিপ নেক্সট সেকশন এই বিষয়ে আরো তথ্য
স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

গতবছর বেসরকারিভাবে হজের খরচ পড়েছিল ৫ লাখ ২২ হাজার ৭৪৪ টাকা। সেই হিসাবে এ বছর খরচ বাড়ছে প্রায় দেড় লাখ টাকা

হজযাত্রীদের মাথায় এবার খরচের আরো বিশাল বোঝা

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান