‘সহিংসতার শিকাররা যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় পাবেন না′ | বিশ্ব | DW | 12.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

যুক্তরাষ্ট্র

‘সহিংসতার শিকাররা যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় পাবেন না'

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেশনস এক রায়ে বলেছেন, অভিবাসন আইনজীবীরা পারিবারিক ও দলবদ্ধ লোকদের দ্বারা সহিংসতার শিকারদের যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয়ের জন্য বিবেচনায় নিতে পারবেন না৷

সোমবার দেয়া এই রায়ের ফলে মধ্য অ্যামেরিকার অনেক মানুষ সমস্যায় পড়তে পারেন৷ কারণ, সাম্প্রতিক সময়ে ঐ অঞ্চলের অনেক মানুষ যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয়ের আবেদন করেছেন৷

২০১৬ সালে এল সালভেদরের এক নারী তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে ‘মানসিক, দৈহিক ও যৌন নিপীড়ন'এর অভিযোগ এনে যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয়ের আবেদন জানান৷ দেশটির ‘বোর্ড অফ ইমিগ্রেশন অ্যাপিলস' ঐ নারীর আবেদন মঞ্জুর করে তাঁকে যুক্তরাষ্ট্রে থাকার অনুমতি দিয়েছিল৷

কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর দেশটির শরণার্থী নীতি কঠোর করার প্রক্রিয়া শুরু করেন৷ ফলে গত মার্চ মাসে ঐ নারীর মামলা পুনরায় পরীক্ষা করে দেখার প্রক্রিয়া শুরু করেন সেশনস৷ রায়ে তিনি বলেন, পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধ করা যে কোনো দেশের জন্যই কঠিন৷

কোনো রাষ্ট্রের পক্ষেই তার নাগরিকদের এক্ষেত্রে সম্পূর্ণ নিরাপত্তা দেয়া সম্ভব নয়৷ এল সালভেদরে পারিবারিক সহিংসতার শিকার হওয়ার মানে এই নয় যে, সে দেশের সরকার যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে তার নাগরিকদের রক্ষায় কম ইচ্ছুক৷

মার্কিন সরকার অবশ্য পারিবারিক ও দলগত সহিংসতার কারণে কত সংখ্যক আশ্রয়ের আবেদন পড়েছে তা জানায়নি৷ তবে মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন, সংখ্যাটি কয়েক হাজার হতে পারে৷

এল সালভেদরের ঐ নারী কর্মীর আইনজীবী ও আইনের অধ্যাপক কারেন মুসালো বলছেন, অ্যাটর্নি জেনারেলের রায়ের কারণে বিশ্বব্যাপী নারী অধিকার নিয়ে যে আন্দোলন হচ্ছে তার ভিত্তি দূর্বল হয়ে যাবে৷

জেডএইচ/এসিবি (এপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়