সরকার গঠন করতে হলে দেশে আসতে হবে: আদালত | বিশ্ব | DW | 28.01.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

স্পেন

সরকার গঠন করতে হলে দেশে আসতে হবে: আদালত

দূরে বসে কাটালুনিয়ার প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিতে পারবেন না কার্লেস পুজদেমন৷ এ নিষেধাজ্ঞা স্পেনের সাংবিধানিক আদালতের। এদিকে দেশে পা দিলেই গ্রেফতার হতে পারেন পুজদেমন৷

শনিবারের এ রায়ের মধ্য দিয়ে একরকম জয় হলো স্প্যানিশ সরকারের৷ তাদের আর্জি ছিল যেন কোনোভাবেই কাটালুনিয়ার আঞ্চলিক পার্লামেন্ট পুজদেমনকে প্রেসিডেন্ট মনোনীত করতে না পারে৷
গেল ডিসেম্বরে সরকারের ডাকা রাজ্যটির নির্বাচনে স্বাধীনতাকামী দলগুলো সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে৷
কাটালুনিয়া পার্লামেন্টের নতুন স্পিকার রজার টরেন্ট এরই মধ্যে পুজদেমনের নাম প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রস্তাব রেখেছেন৷ এমনকি তিনি ব্রাসেলসে গিয়ে পদচ্যুত এই নেতার সঙ্গে দেখাও করে এসেছেন৷

পুজদেমনকে উপস্থিত থাকতে হবে, তবে অনুমতি নিয়ে

 আদালতের রায় বলছে যে, সরকার গঠন করতে হলে বার্সেলোনায় আগামী মঙ্গলবারের শপথ অনুষ্ঠানে পুজদেমনকে সশরীরে উপস্থিত থাকতে হবে, এবং সেজন্য একজন বিচারকের অনুমতিও নিতে হবে৷ অন্যথায় এই সেশন বাতিল বলে গণ্য হবে৷

শনিবার ১১ জন ম্যাজিস্ট্রেটের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে আরো বলা হয়, কোনো বিচারকের অনুমতি ছাড়া প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হতে পারবেন না পুজদেমন
গত অক্টোবরে পুজদেমন ও তাঁর প্রাক্তন মন্ত্রিসভার চার সদস্য বেলজিয়ামে পালিয়ে যান৷ স্পেনে তাঁর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহ, অর্থ কেলেঙ্কারিসহ একাধিক মামলা চলছে, যেগুলোর ন্যায়বিচার পাবেন না বলে দাবি করে বেলজিয়াম চলে যান তিনি৷ তখন থেকেই সেখানে আছেন৷ তবে ধারণা করা হচ্ছে, তিনি ফেরার চেষ্টা করতে পারেন৷
পুজদেমন ও তাঁর সতীর্থরা আশা করেছিলেন যে, ভিডিও কনফারেন্স বা প্রক্সি কাউকে শপথ অনুষ্ঠানে পাঠিয়ে কাজ চালিয়ে নেবেন৷ কিন্তু আদালতের এ সিদ্ধান্তে সেই আশায় গুড়ে বালি৷

ফিরতে চাইলে প্রতিরোধ করা হবে
কাটালুনিয়ার একমাত্র প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী পুজদেমন দেশে ফিরতে চাইলে তা সহজ হবে না৷
একেই গত বছর কাটালুনিয়ার স্বাধীনতা চেয়ে অবৈধ গণভোট করায় তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদোহ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে৷
আদালতে স্পেন সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে, একজন পলাতক আসামী একটি রাজ্য সরকারের প্রধান হতে পারেন না৷
শুক্রবার দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী মারিয়া সোরায়া সায়েন্থ সান্তা মারিয়া বলেন, ‘‘স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার অধিকার তিনি হারিয়েছেন৷ স্পেনে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে গ্রেফতার করা হবে৷''
একই কথা বলেছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও৷
সব মিলিয়ে নির্বাচনের পর পুজদেমনের মনে যে আশার আলো জেগেছিল, এই রায়ের পর তা অনেকটাই নিভে গেল


জেডএ/ডিজি (এপি, রয়টার্স, এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়