‘সরকার ক্ষমতায় থাকলে অনেকের কায়েমি স্বার্থ নিশ্চিত হয়′ | বিষয় | DW | 08.10.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

‘সরকার ক্ষমতায় থাকলে অনেকের কায়েমি স্বার্থ নিশ্চিত হয়'

সাপ্তাহিক ইউটিউব টকশো ‘ডয়চে ভেলে খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়'-তে সুষ্ঠু নির্বাচন বিষয়ে ক্ষমতাসীন দলের মনোভাব প্রসঙ্গে এমন মন্তব্য করেন ড. গোলাম রহমান৷

ডয়চে ভেলে বাংলার জনপ্রিয় এই শোয়ের ৭৭তম পর্বের অতিথি ছিলেন আজকের পত্রিকার সম্পাদক ড. গোলাম রহমান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল৷

এবারের পর্বে আলোচিত হয় বাংলাদেশে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্যান্য দলগুলিকে কেন মানুষ ভোট দেবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন প্রশ্ন নিয়ে৷ মানুষের কাছে আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির গ্রহণযোগ্যতার হাল-হকিকতও উঠে আসে এই পর্বে৷

আজকের আলোচনার একটি অংশে কথা ওঠে বাংলাদেশে কোনো একটি রাজনৈতিক দল ক্ষমতাসীন থাকাকালে আদৌ সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে আগ্রহী হয় কি না, এই ধারায়৷ এবিষয় ড. গোলাম রহমান বলেন, ‘‘সত্যিই কিছু কিছু মানুষ থাকেন যাদের কোনো স্টেক বা কায়েমি স্বার্থ জড়িত থাকে সরকার ক্ষমতায় থাকার সাথে৷ তারা নিজেদের কর্মকাণ্ডকে অখণ্ড রাখতে চান৷ সরকার ক্ষমতা হারালে যদি তারা মনে করেন যে সমস্যা হতে পারে, সে ক্ষেত্রে তারা চিন্তিত থাকেন৷ এরকম অনেক ধরনের দুর্নীতি হয়, কুকীর্তি বা স্বজনপ্রীতি হয়৷ এক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ বা বিএনপি কেউই ধোয়া তুলসী পাতা নয়৷''

অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল সুষ্ঠু নির্বাচনেরপ্রসঙ্গে বলেন, ‘‘সুষ্ঠু নির্বাচন তখনই সম্ভব যখন জনগণের জন্য একটা সমান ক্ষেত্র বা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড থাকে৷ সাথে ভোটারদের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণ ও দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষকদের উপস্থিতি থাকে৷ সে প্রসঙ্গে আমার মতে, গত নির্বাচনগুলির তুলনায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে নির্বাচন অনেকটাই ভালো ও নিরপেক্ষ হয়েছিল৷''

আজকের পর্বে এছাড়াও আলোচিত হয় নিরপেক্ষতা আসলে কোন কোন মাত্রার ওপর নির্ভরশীল, দেশের সাংবিধানিক কাঠামোর ফাঁকফোকরসহ আরো নানা দিক৷

এসএস/এআই

সংশ্লিষ্ট বিষয়