সরকারের প্রতিশ্রুতি, লাহোর মার্চ থামাল টিএলপি | বিশ্ব | DW | 25.10.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাকিস্তান

সরকারের প্রতিশ্রুতি, লাহোর মার্চ থামাল টিএলপি

তেহরিক লাব্বাইক পাকিস্তান(টিএলপি)-এর সঙ্গে সমঝোতায় এল ইমরান খান সরকার। টিএলপি তাদের লাহোর মার্চ বতিল করেছে।

টিএলপি-র সহিংস বিক্ষোভের পর তাদের সঙ্গে সমঝোতা করল পাকিস্তান সরকার।

টিএলপি-র সহিংস বিক্ষোভের পর তাদের সঙ্গে সমঝোতা করল পাকিস্তান সরকার।

গত শুক্রবার থেকে চলছিল সংঘর্ষ। টিএলপি-র বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে। অন্ততপক্ষে দুইজন পুলিশ কর্মী মারা গেছেন। প্রচুর আহত। টিএলপি কর্মীরা রাস্তা অবরোধ করে রেখেছিল।

এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তান সরকার তাদের সঙ্গে সমঝোতায় এসেছে। সরকার জানিয়েছে, টিএলপি নেতার বিরুদ্ধে সব অভিযোগ প্রত্যাহার করা হবে। ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূতের বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি নিয়ে পার্লামেন্টে আলোচনা হবে।

পাক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ জানিয়েছেন, টিএলপি নেতা সাদ রিজভির বিরুদ্ধে যাবতীয় অভিযোগ তুলে নেয়া হবে। তাছাড়া ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূতকে পাকিস্তান থেকে বের করে দেয়ার বিষয়টি নিয়ে পার্লামেন্টে আলোচনা হবে।

মহানবি(সাঃ)-র কার্টুন-কাণ্ড নিয়ে ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূতকে পকিস্তান থেকে তাড়াতে চায় টিএলপি। পাক সরকারের এই প্রতিশ্রুতির পরিপ্রেক্ষিতে টিএলপি জানিয়েছে, তারা প্রস্তাবিত লহোর মার্চ বন্ধ রাখছে। তবে সরকার যতক্ষণ তাদের প্রতিশ্রুতি পালন না করে, ততদিন তারা লাহোরের কাছের একটি শহরে বিক্ষোভ দেখাবে। সরকার কবে প্রতিশ্রুতি পালন করবে, তা অবশ্য পাক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জনাননি।

অশান্ত লাহোর

গত শুক্রবার থেকেই লাহোর অশান্ত হয়ে ওঠে। টিএলপি সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ শুরু হয়। অন্তত দুই জন পুলিশ কর্মী মারা গেছেন। প্রচুর গাড়ি ভাঙচুর হয়েছে। অন্তত ১২ জন পুলিশ কর্মী আহত।

টিএলপি জানিয়েছে, তাদের অন্তত সাতজন কর্মী পুলিশের গুলিতে মারা গেছেন। কয়েকশ আহত। টিএলপি-র দাবি, তাদের হাজার হাজার কর্মীর বিক্ষোভের ফলে সরকার হতচকিত হয়ে পড়েছে।

ভিডিও দেখুন 03:26

টিএলপি নিষিদ্ধের পর পাকিস্তানে ইসলামি দলগুলোর ধর্মঘট

টিএলপি কে

টিএলপি হলো সাদ রিজভির কট্টরপন্থি দল। তারা গত এপ্রিলে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখায়। ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে। তখন টিএলপি-কে নিষিদ্ধ করা হয়। আর রিজভির বিরুদ্ধে মানুষকে উসকানি দেয়ার অভিযোগ আনা হয়। তাকে আটক করা হয়।

এখন আবার তারা আন্দোলন করছিলেন। পাক পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, রিজভির বিরুদ্ধে সব অভিযোগ প্রত্যাহার করার কাজ শুরু হবে।

জিএইচ/এসজি(ডিপিএ, এপি)