‘সরকারি টাকায় হজে না যাওয়াই ভালো’ | বিশ্ব | DW | 02.08.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সাক্ষাৎকার

‘সরকারি টাকায় হজে না যাওয়াই ভালো’

বাংলাদেশে সরকারি টাকায় সরকারি কর্মকর্তাসহ আরো অনেকের যেন হজে যাওয়ার হিড়িক পড়েছে৷ আবার ঘুসখোর ও দুর্নীতিবাজেরাও হজে যান৷ এই ধরনের হজ আসলে কতটা ঠিক বা সওয়াবের?

ডয়চে ভেলেকে এসব প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্ট্যাডিজ বিভাগের চেয়ারমান অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ শফিকুর রহমান৷

ডয়চে ভেলে: হজ ইসলামে কেন এত গুরুত্বপূর্ণ?
শফিকুর রহমান: শারীরিক এবং আর্থিক এই দুইটি ইবাদতই হজ কাভার করে৷ একারণে ইসলামে হজ একটি গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত৷ আল্লাহর ঘর জিয়ারত করা , মহানবী হজরত মুহাম্মদ(সা.)- এর কবর জিয়ারত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷


কাদের জন্য এটা ফরজ?
যাদের আর্থিক এবং শারীরিক সামর্থ্য আছে তাদের জন্য ফরজ৷ আর্থিক সামর্থ্য বলতে পরিবার পরিজনের ভরনপোষন রেখে যাদের ওই পর্যন্ত( মক্কা-মদীনা শরীফ) যাওয়ার সামর্থ্য আছে তাদের জন্য ফরজ৷


অডিও শুনুন 04:44

রাষ্ট্রকে দেউলিয়া করে যাওয়া যাবে না: ড. রহমান

সামর্থ্য থাকার পরও হজ না করা ঠিক হবে কিনা?
না ঠিক হবে না৷ মহানবী (সা.) বলেছেন যারা সামর্থ্য থাকার পরও হজ করবেনা তাদের সাথে তাঁর কোনো সম্পর্ক নেই৷


ধার করে বা ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে কেউ যদি হজ করতে যান সেটা কেমন হবে?
ধার করে বা ঋণ করে হজ না করাই উচিত৷


যদি কেউ করেন তাহলে সমস্যা হবে কিনা?
তার যদি ঋণ পরে শোধ করার সামর্থ্য থাকে তাহলে ঋণ করে হজ করতে পারেন৷ আর যদি তিনি ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন তাহলে ঋণ করে হজ করার প্রয়োজন নেই৷


আজকাল সরকারের টাকায় সরকারি কর্মকর্তা, সাংবাদিকসহ আরো অনেকে হজে যাচ্ছেন৷ ইসলামের দৃষ্টিতে এটাকে কিভাবে দেখবেন?
এটা সরকার ইচ্ছা করলে পারে৷ এটা দুই রকম ৷ একটা হলো সৌদি সরকার নিয়ে যাচ্ছে৷ তাদেরতো অভাব নেই৷ যেমন এবার আমি হজে যাচ্ছি সৌদি সরকারের আমন্ত্রণে৷ এতে অসুবিধা নেই৷ কিন্তু আমাদের দেশের সরকার রাষ্ট্রীয়ভাবে যদি কেউ যায়৷ রাষ্ট্রকে দেউলিয়া করে যাওয়া যাবে না৷


এটাতো দেশের মানুষের টাকায় যাচ্ছেন৷ জনগণের ট্যাক্সের টাকায় যাচ্ছেন৷ এটা কি কবুল হবে?
কবুল হওয়া না হওয়া আল্লাহর ব্যাপার৷ তবে সরকারি টাকায় হজে না যাওয়াই ভালো৷ এটাকে আমি ভালো মনে করিনা৷ কারণ দেশকে দেউলিয়া করে হজে যাওয়ার কোনো মানে হয়না৷


দুর্নীতি, ঘুস, অবৈধ টাকায় হজ করাকে আপনি কিভাবে দেখেন?
দুর্নীতি ইসলামে নিষিদ্ধ৷ ঘুস নিষিদ্ধ৷ ঘুস-দুর্নীতির টাকায় হজ করা জাকাত দেয়া- এর কোনোটাই সওয়াবের কাজ না৷


অনেকে একাধিকবার হজ করেন৷ এর কি প্রয়োজন?
সামর্থ্যবানের জন্য জীবনে একবার হজ করা ফরজ৷ এবারের বেশি হজ করার তেমন কোনো প্রয়োজন নেই৷

হজের উদ্দেশ্য কী?
সারা বিশ্বের মুসলামনারা সেখানে এক হয়ে আল্লাহর ইবাদতে মশগুল হচ্ছেন৷ সারা বিশে^র মানুষ এক হচ্ছেন৷ সাম্য, ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে আবদ্ধ হন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন