সরকারি চাকুরেদের সম্পদের হিসাব দেয়ার আহ্বান | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 26.07.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

সরকারি চাকুরেদের সম্পদের হিসাব দেয়ার আহ্বান

সরকারি চাকুরেদের সম্পদের হিসাবের তাগিদ দিয়ে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবদের চিঠি দিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়৷

সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা অনুযায়ী, পাঁচ বছর পরপর সরকারি চাকরিজীবীদের সম্পদের বিবরণী দাখিল এবং স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি অর্জন বা বিক্রির অনুমতি নেওয়ার কথা৷

ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব কে এম আলী আজম জানান, বিধিমালাটি বাস্তবায়নের তাগিদ দিয়ে সম্প্রতি চিঠি দেওয়া হয়েছে৷ তিনি বলেন, "আমরা এ বিষয়ে চিঠি দিয়েছি, সম্পদের হিসাব দেওয়া শুরু হবে৷ এরপর কেউ না দিলে অবশ্যই সময় বেঁধে দেওয়া হবে৷ আগামী মাসে এ সময়টা আমরা দিয়ে দেবো৷''

তিনি আরো বলেন, "এটি নিশ্চিত হলে দুর্নীতি কমবে৷ প্রশাসনে দুর্নীতি রোধ এবং স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতের জন্য সরকারের নানা রকম উদ্যোগ রয়েছে৷ এই তাগিদের বিষয়টিও সেই উদ্যোগের অংশ৷'' 

সচিবদের কাছে পাঠানো চিঠিতে সরকারি কর্মচারী বিধিমালা ১৯৭৯–এর বিধি ১১, ১২ ও ১৩ তে সরকারি কর্মচারীদের স্থাবর সম্পত্তি অর্জন, বিক্রয় ও সম্পদ বিবরণী দাখিলের বিষয়ে নির্দেশনার বিষয়টি মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে৷

তাদের জমি, বাড়ি, ফ্ল্যাট বা সম্পত্তি ক্রয় বা অর্জন ও বিক্রির অনুমতির জন্য আবেদনপত্রের নমুনা ফরম এবং সম্পদ বিবরণী দাখিলের ছক চিঠির সঙ্গে যুক্ত করে দেওয়া হয়েছে৷

সরকারি কর্মচারীদের পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে বিধিগুলো প্রতিপালনের মাধ্যমে জরুরি ভিত্তিতে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করে তা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে জানাতে বলা হয়েছে৷

এনএস/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম) 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়