সমালোচনার মুখে সু চি আর মিয়ানমার | বিশ্ব | DW | 05.09.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মিয়ানমার

সমালোচনার মুখে সু চি আর মিয়ানমার

রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের ঘটনায় মিয়ানমারের নোবেলজয়ী নেত্রী অং সান সু চি ও সরকারের সমালোচনা করেছে মুসলিম অধ্যুষিত কয়েকটি দেশ৷ আরেক নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই সু চির প্রতি ঘটনার নিন্দা জানানোর আহ্বান জানিয়েছেন৷

জাতিসংঘ বলছে, গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে সংঘাত ছড়িয়ে পড়ার পর প্রায় এক লক্ষ ২৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে৷ এখন পর্যন্ত সু চি এ ব্যাপারে প্রকাশ্যে কোনো কথা বলেননি৷

টুইটারে প্রকাশ করা এক বিবৃতিতে পাকিস্তানের নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই বলেছেন, ‘‘যখনই আমি খবর দেখি তখনই মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমানদের দুর্ভোগ দেখে হৃদয় ভেঙে যায়৷'' তিনি বলেন, ‘‘গত কয়েক বছরে আমি এই মর্মান্তিক ও লজ্জাজনক পরিস্থিতির নিন্দা জানিয়েছি৷ নোবেলজয়ী অং সান সু চি-ও একই কাজ করবেন, সেই অপেক্ষায় আছি৷''

মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনিফাহ আমান সু চি'র নীরবতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন৷ এএফপিকে তিনি বলেন, ‘‘স্পষ্ট করে বললে আমি সু চি-কে নিয়ে হতাশ৷ (এর আগে) তিনি মানবাধিকারের পক্ষে দাঁড়িয়েছেন৷ এখন মনে হচ্ছে তিনি কিছুই করছেন না৷''

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়্যেপ এর্দোয়ান গত সপ্তাহেরোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধেমিয়ানমার ‘গণহত্যা' চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন৷

এদিকে, মালদ্বীপের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে ‘রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে নৃশংসতা বন্ধে সরকার কোনো উদ্যোগ না নেয়া পর্যন্ত' মিয়ানমারের সঙ্গে সব ধরণের বাণিজ্যিক সম্পর্ক বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে৷

ভিডিও দেখুন 01:01
এখন লাইভ
01:01 মিনিট

বিদ্রোহ দমনের কৌশল – হত্যা, ধর্ষণ, আগুন

ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো মারসুদি সোমবার মিয়ানমারে সু চি ও সেনাপ্রধান জেনারেল মিন অং লাইংয়ের সঙ্গে বৈঠক করেছেন৷ আজ মঙ্গলবার তিনি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ঢাকায় বৈঠক করবেন৷

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট রবিবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘এই মানবাধিকার বিষয়ক সংকট অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে৷'' তাঁর এই মন্তব্যের আগে জাকার্তায় মিয়ানমার দূতাবাসে একটি পেট্রোল বোমা ছোড়া হয়৷ সোমবারও জাকার্তার মিয়ানমার দূতাবাসের সামনে বিক্ষোভ হয়েছে৷

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক বিবৃতিতে মিয়ানমারে মৃতের সংখ্যা বাড়ায় গভীর উদ্বেগের কথা জানিয়েছে৷ এছাড়া রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে নৃশংসতার খবর তদন্ত করতে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে দেশটি৷

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ সম্প্রতি এক টুইটে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় ও জাতিসংঘকে উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়