সমকামীদের সমর্থন করায় নয়ারের শাস্তি হবে না | বিশ্ব | DW | 21.06.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমকামী অধিকার

সমকামীদের সমর্থন করায় নয়ারের শাস্তি হবে না

ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম দুই ম্যাচে হাতে সমকামীদের প্রতি সমর্থন জানাতে প্রাইড বাহুবন্ধনী পরেছিলেন জার্মানির অধিনায়ক ও গোলরক্ষক মানুয়েল নয়ার৷

ফ্রান্সের সঙ্গে ম্য়াচে নয়ারের বাম হাতে প্রাইড আর্মব্যান্ড দেখা যাচ্ছে

ফ্রান্সের সঙ্গে ম্য়াচে নয়ারের বাম হাতে প্রাইড আর্মব্যান্ড দেখা যাচ্ছে

বিষয়টির তদন্ত করে উয়েফা বলেছে, এর জন্য নয়ার কিংবা জার্মান ফুটবল ফেডারেশনকে শাস্তি পেতে হবেনা৷

উয়েফার নিয়ম অনুযায়ী ‘রাজনৈতিক প্রতীক' নির্দেশকারী কিছু পরা বা প্রদর্শন করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ৷ এর দায়ে খেলোয়াড় ও তার ফুটবল সংস্থাকে জরিমানা করা হতে পারে৷

নয়ারের প্রাইড বাহুবন্ধনী এই নিয়মের মধ্যে পড়ে কিনা তা নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছিল৷ পরে উয়েফা জানায় যে, এই বাহুবন্ধনী আসলে ‘বৈচিত্র্যের প্রতীক এবং এটি ভালো কারণে পরা হয়েছে'৷ সেজন্য নয়ার বা জার্মান ফুটবল ফেডারেশনকে কোনো শাস্তি দেয়া হবেনা৷

এদিকে, নয়ারের এমন বাহুবন্ধনী পরার সমালোচনা করে টুইট করেছিলেন জার্মানির চরম ডানপন্থি দল এএফডির একজন রাজ্য সাংসদ উভে ইয়োঙ্গে৷ সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা ঐ বাহুবন্ধনীকে ‘এফ*****' আর্মব্যান্ড বলে আখ্যায়িত করেছিলেন৷ পরে সমালোচনার মুখে ক্ষমা চেয়ে তিনি সেটি মুছে ফেলেন৷ এএফডির কো-লিডার আলিস ভাইডেল, যিনি নিজেও একজন সমকামী, ঐ টুইটের সমালোচনা করেছিলেন৷

এএফডির আরেক রাজনীতিবিদ ও বুন্ডেসটাগের সাংসদ গেওর্গ পাজদেরস্কিও নয়ারের প্রাইড বাহুবন্ধনী পরার ঘটনা নিয়ে তাচ্ছিল্য করেছেন৷

এদিকে বুধবার মিউনিখে হাঙ্গেরির বিরুদ্ধে তৃতীয় ম্যাচ খেলবে জার্মানি৷ সেই সময় হাঙ্গেরির সমকামীদের প্রতি সমর্থন জানাতে স্টেডিয়ামে রংধনু রং প্রদর্শনের দাবি করা হয়েছে

হাঙ্গেরিতে সম্প্রতি পাস হওয়া এক আইনে বলা হয়েছে, কোনো কোম্পানির বিজ্ঞাপনে সমকামীদের অধিকারের পক্ষে কিছু বলা যাবেনা৷ সমকামীদের সাধারণ মানুষ হিসেবেও তুলে ধরা যাবেনা৷ এছাড়া ঐ আইনে এলজিবিটি অধিকার সম্পর্কে অপ্রাপ্তবয়স্কদের শিক্ষাদানও অবৈধ করা হয়েছে৷

জেডএইচ/কেএম

গতবছর সেপ্টেম্বরের ছবিঘরটি দেখুন...