সমকামিতা অপরাধ নয়, ভারতের সুপ্রিম কোর্টের রায় | বিশ্ব | DW | 06.09.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

সমকামিতা অপরাধ নয়, ভারতের সুপ্রিম কোর্টের রায়

সমকামিতার ওপর ঔপনিবেশিক আমলে জারি করা নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে রায় দিলো ভারতের সুপ্রিম কোর্ট৷ আদালত বলছে, এই আইনকে ‘সমকামীদের ওপর নির্যাতনের হাতিয়ার' হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে৷

এই রায়ের ফলে ১৪৬ বছরের পুরনো একটি আইন আর কার্যকর থাকলো না৷ আইনটি ৩৭৭ ধারা নামে বেশি পরিচিত৷ এই রায়ের আগ পর্যন্ত সমকামের শাস্তি ছিল ১০ বছরের কারাদণ্ড৷ আদালত বলছে, ভারতের সংবিধানের সাথে এই আইন সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়৷

ঐতিহাসিক এই রায় ঘোষণার সময় প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র বলেন, ‘‘এই আইন দেশের সমকামীদের জন্য একটি নির্যাতনের হাতিয়ারে পরিণত হয়েছে৷’’

পাঁচ ব্যক্তির করা পিটিশনের ভিত্তিতে সর্বসম্মতিক্রমে এই রায় এলো৷ আদালতে দায়ের করা পিটিশনে অভিযোগ করেন, তাঁরা হয়রানি ও পুলিশি নির্যাতনের আশংকায় দিন কাটাচ্ছেন৷

দীর্ঘদিন ধরে সমকামীদের অধিকার নিয়ে কাজ করে আসা অ্যাক্টিভিস্টরা এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন৷ হিউম্যান রাইটস ওয়াচের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের প্রধান মীনাক্ষী গাঙ্গুলি ‘‘শত প্রতিকূলতা সত্ত্বেও যাঁরা এর পক্ষে লড়াই চালিয়ে গেছেন,’’ তাঁদের ধন্যবাদ জানান৷

বলিউডের চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিচালক করণ জোহর এক টুইটে এই রায়কে ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করেছেন৷ মানবতা ও সমঅধিকারের পক্ষে ভারত আরেকটু এগিয়ে গেল বলেও মনে করেন তিনি৷

২০০৯ সালে নয়াদিল্লির এক আদালত এই আইন বাতিল করে রায় দেয়৷ কিন্তু উগ্র ধর্মীয় সংগঠনগুলোর চাপের মুখে রাজ্যের সর্বোচ্চ আদালত ২০১৩ সালে এই রায় পালটে দিতে বাধ্য হয়৷

৩৭৭ ধারা অনুযায়ী ‘প্রকৃতির নিয়মের বাইরে গিয়ে পুরুষ, নারী বা পশুর সাথে যেকোনো ধরনের যৌন সম্পর্ক স্থাপনকে’ অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়৷ সমকামিতাকে স্বীকৃতি দিলেও ‘পশুর সাথে যৌনকর্মকে’ অপরাধ হিসেবেই ঘোষণা করা হয়েছে রায়ে৷

এডিকে/এসিবি (রয়টার্স, ডিপিএ, এপি, এফপি)

প্রিয় পাঠক, আপনি কিছু বলতে চাইলে লিখুন নীচে মন্তব্যের ঘরে...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন