সমকামিতার দায়ে মালয়েশিয়ায় দুই নারীকে বেত্রাঘাত | বিশ্ব | DW | 04.09.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মালয়েশিয়া

সমকামিতার দায়ে মালয়েশিয়ায় দুই নারীকে বেত্রাঘাত

লেসবিয়ান সেক্স করার অভিযোগে মালয়েশিয়ার এক শরিয়া আদালত দুই নারীকে বেত্রাঘাত করেছে৷ মানবাধিকার সংস্থাগুলো এই সাজার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷

ইসলামিক শরিয়া আইন অনুযায়ী, ১৫০ প্রত্যক্ষদর্শীর উপস্থিতিতে সোমবার তাঁদেরকে ছয়টি করে বেতের আঘাত করা হয়৷ এ সময় তাঁরা বোরকা পরে ছিলেন৷

মালয়েশিয়ার উত্তর-পূর্বের প্রদেশ তেরেঙ্গানুতে ৩২ বছর এবং ২২ বছর বয়সি দুই নারীর সাজা কার্যকর করা হয়৷ এই সাজার পাশাপাশি দুই নারীকে আর্থিক জরিমানাও করা হয়৷

মালয়েশিয়ায় রাষ্ট্রীয় আইনের পাশাপাশি দ্বৈত আইনি ব্যবস্থা হিসেবে শরিয়া আইনও চলে৷ ফলে, দেশটির সিভিল আইনে বেত্রাঘাতের শাস্তি নিষিদ্ধ হলেও শরিয়া আইন তা অনুমোদন করে৷

৬০ শতাংশ মুসলিম অধ্যুষিত দেশটিতে সাম্প্রতিক সময়ে ইসলামিক রক্ষণশীলতা বেড়েই চলেছে৷ দিন দিন বাড়ছে সমকামী গোষ্ঠীর প্রতি বৈষম্য ও সহিংসতা৷

‘নিষ্ঠুর, অমানবিক এবং অবমাননাকর'

মানবাধিকার সংস্থাগুলো এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷ তাঁরা বলছে, প্রথমত, বেত্রাঘাত কোনো শাস্তি হতে পারে না৷ দ্বিতীয়ত, কারো যৌন আকাঙ্খা অপরাধ হিসেবে গণ্য হতে পারে না৷

মালয়েশিয়ার অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল এক বিবৃতিতে বলছে, এই ঘটনা মালয়েশিয়ার জন্য একটি ‘আতঙ্কের দিন' হয়ে থাকবে৷ পাশাপাশি এ ধরনের শারীরিক শাস্তিকে ‘নিষ্ঠুর, অমানবিক এবং অবমাননাকর' বলেও বর্ণনা করেছে সংস্থাটি৷

সংস্থার গবেষক ব়্যাচেল ছোয়া-হোওয়ার্ড বলেন, ‘‘পারস্পরিক সম্মতিতে সমকামী সম্পর্ক গড়ে তোলায় দুই জন মানুষকে যে বর্বরোচিত শাস্তি দেয়া হলো, তাতে মানবাধিকারের উন্নয়ন ঘটাতে সরকারের চেষ্টা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷''

জাস্টিস ফর সিস্টার্স নামের একটি নারী অধিকার সংগঠনের মুখপাত্র থিলাগা সুলাথিরেহ এই ঘটনাকে ‘মালয়েশিয়ার মানবাধিকার পরিস্থিতির চরম অবনতি' বলে বর্ণনা করেছেন৷

বাড়ছে অস্থিরতা

র ডেপুটি প্রেসিডেন্ট আবদুল রহিম সিনোয়ান অবশ্য এই শাস্তিকে কঠোর বা যন্ত্রণাদায়ক বলে মানতে রাজি নন৷ তিনি বলছেন, এমন শাস্তির উদ্দেশ্য নারীদের ‘একটু শিক্ষা দেয়া এবং অনুশোচনা করতে সাহায্য করা'৷

মালয়েশিয়ায় সমকামী ও তৃতীয় লিঙ্গের প্রতি অসহিষ্ণুতা দিন দিন বেড়েই চলেছে৷ দক্ষিণের এক প্রদেশে গত মাসে কিছু লোক মিলে তৃতীয় লিঙ্গের এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন৷

কয়েক সপ্তাহ আগে একটি প্রদর্শনী থেকে দুই সমকামী অ্যাক্টিভিস্টের ছবি সরিয়ে ফেলা হয়৷ পরে দেশটির ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী মুজাহিদ ইউসুফ রাওয়া সাংবাদিকদের বলেন, সরকার সমকামের প্রচার সমর্থন করে না৷

এডিকে/এসিবি (এপি,রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন