সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় জার্মানিতে ইমাম প্রশিক্ষণের পরিকল্পনা | বিশ্ব | DW | 11.11.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় জার্মানিতে ইমাম প্রশিক্ষণের পরিকল্পনা

ফ্রান্স এবং অস্ট্রিয়ায় সন্ত্রাসী হামলার পর দেশেই ইমাম প্রশিক্ষণের পরিকল্পনা করছে জার্মানি। ‘ইসলাম সম্মেলনে এমনটাই জানালেন জার্মান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়তে অভিনব পরিকল্পনা করেছে জার্মান সরকার। জার্মানভাষী ইমামরা যাতে জার্মানিতেই প্রশিক্ষণ নিতে পারেন, তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সেদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। মঙ্গলবার থেকে জার্মানিতে শুরু হয়েছে 'ইসলাম কনফারেন্স'। সেখানেই এ বিষয়ে দীর্ঘ আলোচনা করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হর্স্ট সেহোফার।

সম্প্রতি প্যারিস, নিস এবং ভিয়েনায় ইসলামি চরমপন্থীরা বেশ কয়েকটি হামলা চালিয়েছে। নিহত হয়েছেন এক শিক্ষক সহ সাধারণ মানুষ। তারপরেই ইউরোপ জুড়ে নানা বিতর্ক শুরু হয়েছে। ফ্রান্সের সঙ্গে মুসলিম বিশ্বের বাকযুদ্ধ শুরু হয়েছে। ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁর বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন পাকিস্তান এবং তুরস্কের রাষ্ট্রপ্রধানরা। মাক্রোঁও বাকস্বাধীনতার নামে ইসলামি সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে বিভেদের আবহাওয়া তৈরি হচ্ছে বলে মনে করছেন বহু বিশেষজ্ঞ। জার্মানির পদক্ষেপ সেই অবস্থার পরিবর্তন ঘটাতে পারবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

ভার্চুয়াল ইসলামিক কনফারেন্সের প্রধান বক্তা ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সেহোফার। তিনি বলেছেন, যে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে ইউরোপে এখন এত আলোচনা চলছে, তা রুখতে ইসলামিক গোষ্ঠীগুলিকেই আরো শক্তিশালী করতে হবে। তাদের সঙ্গে রাষ্ট্রের সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতে হবে। সে কারণেই জার্মান বলতে পারা ইমামদের জার্মানিতেই বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। তাঁরাই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে দাঁড়াবেন এবং সবার কাছে সেই বার্তা পৌঁছে দেবেন।

সাধারণত, জার্মানির ইমামরা তুরস্কে গিয়ে ইমাম হওয়ার প্রশিক্ষণ নিয়ে আসেন। তুরস্কেই ইসলামিক স্কুলে তাঁরা পাঠ নেন। কিন্তু জার্মানি চাইছে, জার্মানিতেই সেই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে।

শুধু ইমামদের প্রশিক্ষণই নয়, জার্মানির মসজিদগুলোকে আরো সাহায্য দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রী। মসজিদগুলোতে যাতে পড়ালেখার ব্যবস্থা করা যায় সেই পরিকল্পনাও রয়েছে তাদের। একই সঙ্গে মসজিদগুলো পরিচালনার দিকেও লক্ষ্য রাখা হবে।

এসজি/জিএইচ (ডিপিএ)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন