সন্ত্রাসবাদে মদদের সন্দেহে বার্লিনের মসজিদে পুলিশের অভিযান | বিশ্ব | DW | 18.12.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

সন্ত্রাসবাদে মদদের সন্দেহে বার্লিনের মসজিদে পুলিশের অভিযান

বড় ধরনের সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় জার্মানির রাজধানী বার্লিনের মসজিদসহ বেশ কয়েকটি ভবনে অভিযান চালিয়েছে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনী৷ তাদের সন্দেহ, সিরিয়ায় ইসলামি যোদ্ধাদের অর্থ সহায়তা করছে বার্লিনের এক মসজিদের ইমাম৷

মঙ্গলবার ভোরে বার্লিনের একটি মসজিদসহ বেশ কয়েকটি ভবনে অভিযান চালায় পুলিশ৷ তাদের ধারণা, এসব ভবনে সন্ত্রাসবাদে মদদ দাতারা আত্মগোপন করে আছেন৷

এসব অভিযানে অংশ নেন স্টেট ক্রিমিনাল পুলিশ, গোয়েন্দা কর্মকর্তা এবং পুলিশের বিশেষ বাহিনী৷ বার্লিনের ওয়েডিং এলাকার কাছে আস-সাহাবা মসজিদে অভিযান চালান তাঁরা৷

ঐ মসজিদের ইমাম আহমেদ এ কে প্রধান সন্দেহভাজন মদদদাতা বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ মসজিদে ইমামতি করার সময় তিনি ‘আবুল বারা' নামটি ব্যবহার করেন৷ আইনজীবীরা জানান, ৪৫ বছর বয়সি এই ইমাম সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য সিরিয়ার ইসলামি যোদ্ধাদের কাছে অর্থ সাহায্য পাঠান৷ সেসব অর্থ দিয়ে সামরিক অস্ত্র-শস্ত্র কেনা হয়৷

তবে বার্লিন কর্তৃপক্ষ এখনই এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাতে নারাজ৷ আস-সাহাবা মসজিদটিতে বহুদিন থেকেই নজর রাখছিল জার্মানির গোয়েন্দা সংস্থা৷ তাঁরা বলছেন, জার্মানির কট্টরপন্থি সালাফিস্ট সদস্যদের জমায়েত হওয়ার জায়গা এই মসজিদ৷

২০১০ সালে মসজিদটি নির্মাণ করেন মিশরীয় বংশোদ্ভূত এক জার্মান৷ বালিতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে অংশ নেয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে৷ পরে তিনি জার্মানি ছেড়ে সিরিয়ায় চলে যান৷ সেখানে গিয়ে তথাকথিতইসলামী জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের শিক্ষা মন্ত্রী হন৷

এপিবি/এসিবি (এপি, এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন