সন্তানের মৃত্যুতে মাত্র ৫৬ ডলার! | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 27.12.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

সন্তানের মৃত্যুতে মাত্র ৫৬ ডলার!

এক সন্তান নীতি কঠোরভাবে অনুসরণ করে আসছে চীন৷ একমাত্র সন্তান মারা গেলে ‘ক্ষতি’ পোষাতে মা-কে টাকা দেয়া হয়৷ মায়েদের দাবির মুখে টাকার অঙ্কটা বাড়ানো হচ্ছে৷ এখন থেকে সন্তানহারা মা-কে প্রতি মাসে ৫৬ ডলার দেবে চীন সরকার৷

বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান এবং এমন আরো কিছু দেশের মতো চীনের মানুষও বার্ধক্যের কষ্টের কথা ভেবেই মূলত সন্তান নিতে চায়৷ বুড়ো বয়সে সন্তান পাশে থাকবে – এই ভাবনা থেকে যার যত খুশি সন্তান নেয়ার সুযোগ কিন্তু চীনে নেই৷ বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দেশটিতে কেউ চাইলেও একটির বেশি সন্তান নিতে পারেন না৷ এই ‘এক সন্তান নীতি'র কারণেই বিপুল জনসংখ্যা এখনো দেশের জন্য বোঝা হয়ে ওঠেনি, বলে মনে করে চীনের জনস্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কমিশন৷ সরকারিভাবে দাবি করা হয়, এক সন্তান নীতি অবলম্বন না করলে আশির দশক থেকে এ পর্যন্ত কমপক্ষে আরো চল্লিশ কোটি শিশু জন্ম নিতো৷

যেসব এক সন্তানের জনক-জননী একটু বেশি বয়সে সন্তান হারান তাঁদের প্রতি চীন সরকার কিছুটা সহানুভূতিশীল৷ বাবা-মায়ের উপার্জন করার মতো শারীরিক সক্ষমতা না থাকলে সন্তানদের মুখাপেক্ষী হতেই হয়৷

Familienpolitik in China Frau mit Kinderwagen

চীনে চাইলেও কেউ একটির বেশি সন্তান নিতে পারেন না

সেই বয়সে সন্তান মারা গেলে এতদিন চীন সরকার তাঁদের প্রতিমাসে নির্দিষ্ট পরিমাণের টাকা দিতো৷ কয়েকদিন আগে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে টাকার অঙ্ক নিয়ে অসন্তুষ্ট কয়েকজন বৃদ্ধা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কমিশনের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করেন৷ তাতে কিছুটা কাজ হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এখন থেকে সন্তানহারা মা-কে আগের তুলনায় তিনগুন টাকা দেয়া হবে৷ আগে শহরের মায়েদের প্রতি মাসে দেয়া হতো ১০০ ইউয়ান৷ সেই অঙ্কটা বাড়িয়ে এখন ৩৪০ ইউয়ান, অর্থাৎ ৫৬ ডলার করা হয়েছে৷ এ ছাড়া গ্রামাঞ্চলের মায়েরা প্রতি মাসে পাবেন ১৭০ ইউয়ান করে৷

প্রতি মাসে এভাবে সামান্য কিছু টাকা কিন্তু সব সন্তানহারা মা-কে দেয়া হচ্ছে না৷ মায়ের বয়স অন্তত ৪৯ বছর না হলে তাঁকে উপার্জনে অক্ষম হিসেবে মানা হবে না, সেক্ষেত্রে সন্তান মারা গেলেও তাঁকে কোনো টাকা দেবে না চীন সরকার৷

এসিবি/জেডএইচ (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন