‘সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ে মন্ত্রীর মুখে এমন কথা মানায় না′ | পাঠক ভাবনা | DW | 02.05.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ে মন্ত্রীর মুখে এমন কথা মানায় না'

বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়ে গেছে৷ কিন্তু তারপরও ‘চালকদের সাজা বাড়ালেই দুর্ঘটনা কমবে না' এই মন্তব্য করেছেন নৌমন্ত্রী শাহজাহান খান৷ তাঁর এই মন্তব্য নিয়ে ডয়চে ভেলে বাংলার ফেসবুক পাতায় অনেক পাঠক তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন৷

জাকির হোসেন মন্ত্রীর এই ধরণের মন্তব্যে খুবই অসন্তুষ্ট৷ আর শাহিদা আক্তার লিখেছেন, বাংলাদেশে যেখানে সড়ক দুর্ঘটনার কারণে পরিচালক, নির্মাতার প্রাণ যাওয়ার পরও কোনো বিচার হয়না, সেখানে সাধারণ মানুষের মৃত্যুর জন্য আর কী হবে? শাহিদা হতাশ হয়ে মন্তব্য করেছেন, ‘‘নৈতিকতা এখানে অবান্তর৷''

নৌমন্ত্রী চালকদের পক্ষে মন্তব্য করায় তাঁর মন্ত্রিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সাংস্কৃতিক সংগঠক কামাল লোহানী৷ কামাল লোহানীর মন্তব্যে পাল্টা মন্তব্য করেছেন পাঠক গোলাম ফারুক৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘বিচিত্র এ বাংলাদেশ৷ কামাল লোহানী সাহেবের কী হবে জানি না, তবে মন্ত্রী শাহজাহান খানের মানোন্নয়ন হবে৷ অথচ গণতান্ত্রিক দেশে এমন মন্তব্য করার পর কারো মন্ত্রী পদে থাকার কথা নয়৷''

এদিকে, কোনো মন্তব্যেই কোনো কাজ হবেনা, দেশের প্রধানমন্ত্রী যা চান তাই হবে, বলে বিশ্বাস করেন পাঠক মোহাম্মদ হক৷

তবে কামরুন নাহার পুরোপুরি নিশ্চিত যে দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তির দায়ভার চালকের উপর পড়লে ভালো হয়, এতে চালকেরা যেমন সাবধান হবেন অন্যদিকে দুর্ঘটনাও কমবে৷

নৌমন্ত্রী মনে করেন, চালকদের সাজা বাড়ালেই দুর্ঘটনা কমবে না৷ তাই সেকান্দার আবুল মালেক মন্ত্রীর কাছে জানতে চেয়েছেন, ‘‘কীভাবে এক্সিডেন্ট কম হবে তা মন্ত্রী সাহেব নিজেই বলুন৷''

এ আর রহমান শুধু লিখেছেন, ‘‘একজন মন্ত্রীর মুখে এমন কথা মানায় না৷''

তবে এ বিষয়ে কিছুটা ভিন্ন মত পোষণ করেন ডয়চে ভেলের পাঠক তাজ উদ্দিন৷ তিনি মনে করেন দুর্ঘটনার জন্য দোষ যেমন গাড়ির চালকের, তেমনি পথচারীদেরও৷ কারণ তারাও রাস্তা পার হতে গিয়ে তাড়াহুড়ো করে থাকেন৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন