সংলাপ শেষ, নেতাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া | বিশ্ব | DW | 01.11.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

সংলাপ শেষ, নেতাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া

গণভবনে সাড়ে তিন ঘণ্টা সংলাপ শেষে আওয়ামী লীগ নেতা ওবায়দুল কাদের ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেন সন্তোষ প্রকাশ করেছেন৷ তবে বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সন্তুষ্ট না হওয়ার কথা জানিয়েছেন৷

আওয়ামী লীগ নেতা ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘‘সুন্দর পরিবেশে আলোচনা হয়েছে৷ প্রধানমন্ত্রী খুব ধৈর্য নিয়ে তাঁদের কথা শুনেছেন৷'' আর ড. কামাল বলেছেন, ‘‘ভালো আলোচনা হয়েছে৷’’ আলোচনা ‘ফলপ্রসূ হবে’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি৷

এদিকে, বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর গাড়িতে ওঠার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘‘আমরা (আলোচনায়) সন্তুষ্ট নই৷’’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্য নেতারা সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি৷

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ নেতা ওবায়দুল কাদের জানান, ঐক্যফ্রন্ট যদি আবার আলোচনা করতে চায়, তাহলে প্রধানমন্ত্রীর দ্বার উন্মুক্ত৷ সভা, সমাবেশের অনুমতি প্রসঙ্গে কাদের বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী পরিষ্কারভাবে বলে দিয়েছেন সভা, সমাবেশ ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতা থাকবে৷’’’ তবে রাস্তা বন্ধ না করে খোলা ময়দানে এসব করতে প্রধানমন্ত্রী অনুরোধ করেছেন বলে জানান আওয়ামী লীগের এই নেতা৷

রাজনৈতিক মামলা প্রসঙ্গে কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের কাছে মামলার তথ্য জানতে চেয়েছেন৷ সেগুলো তদন্ত করে দেখার আশ্বাস দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি৷

সংলাপের নির্ধারিত সময় সন্ধ্যা ৭টার পরপরই সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা৷

এরপর দেয়া সূচনা বক্তব্যে আওয়ামী লীগের ১০ বছরের শাসনকালের মূল্যায়ন করে দেখতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি৷ শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘গণভবন জনগণের ভবন, এখানে আপনাদের সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি৷... আমি এটুকু বলতে পারি যে, বাংলাদেশের জন্য আজকে আমরা যে আর্থ সামাজিক উন্নয়ন করে যাচ্ছি এবং দীর্ঘ সংগ্রামের পথ পাড়ি দিয়ে গণতন্ত্রের ধারা অব্যাহত রেখেছি, সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের এ উন্নয়নের গতিধারা অব্যাহত রাখার ক্ষেত্রে বিরাট অবদান রাখবে বলে মনে করি৷ এছাড়া এই দেশটা আমাদের সকলের৷ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং দেশের সার্বিক উন্নয়নই আমাদের মূল লক্ষ্য৷’’

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৪ দলের ২৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নিয়েছেন৷ বাকি সদস্যরা হলেন, আওয়ামী লীগ নেতা ওবায়দুল কাদের, আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোহাম্মদ নাসিম, কাজী জাফর উল্যাহ, আবদুল মতিন খসরু, মো.আব্দুর রাজ্জাক, রমেশ চন্দ্র সেন, আনিসুল হক, মাহাবুব-উল আলম হানিফ, আবদুর রহমান, দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুস সোবহান গোলাপ, শ ম রেজাউল করিম, ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেনন, জাসদ নেতা হাসানুল হক ইনু, মইনুদ্দিন খান বাদল, সাম্যবাদী দলের দিলীপ বড়ুয়া৷

অপরদিকে, ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ২০ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নিয়েছেন৷ তাঁরা হলেন, বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, আবদুল মঈন খান, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য সচিব আ ব ম মোস্তফা আমীন, সাবেক দুই সংসদ সদস্য এস এম আকরাম ও সুলতান মো. মনসুর আহমেদ, জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জেএসডির আ স ম আবদুর রব, তানিয়া রব, আবদুল মালেক রতন, গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, মোস্তফা মহসিন মন্টু, আ ও ম শফিকউল্লাহ, মোকাব্বির খান, জগলুল হায়দার আফ্রিক এবং নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না৷

জেডএইচ/এসিবি (তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, সময় টেলিভিশন)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন