1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করবেন, ততক্ষণ প্রেসিডেন্টের ভবন ছেড়ে নড়বেন না সাধারণ মানুষ
প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করবেন, ততক্ষণ প্রেসিডেন্টের ভবন ছেড়ে নড়বেন না সাধারণ মানুষছবি: Eranga Jayawardena/AP/dpa/picture alliance
রাজনীতিশ্রীলঙ্কা

শ্রীলঙ্কা: সংকট মেটাতে আলোচনায় বিরোধীরা

১০ জুলাই ২০২২

প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসে এবং প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে শনিবার পদত্যাগ করতে সম্মত হয়েছেন৷ দ্বীপরাষ্ট্রের বিরোধী দলগুলি জনগণের বিক্ষোভ সামলে পরিস্থিতি শান্ত রাখতে জোট নিয়ে তৎপর হচ্ছে৷

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%80%E0%A6%B2%E0%A6%99%E0%A7%8D%E0%A6%95%E0%A6%BE-%E0%A6%B8%E0%A6%82%E0%A6%95%E0%A6%9F-%E0%A6%AE%E0%A7%87%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%86%E0%A6%B2%E0%A7%8B%E0%A6%9A%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B0%E0%A7%8B%E0%A6%A7%E0%A7%80%E0%A6%B0%E0%A6%BE/a-62423361

শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোসহ গোটা দেশজুড়ে বিক্ষোভ অব্যাহত৷ অর্থনৈতিক টানাপোড়েনের জন্য সরকার সম্পূর্ণরূপে দায়ী, এমনটাই দাবি করছেন দ্বীপরাষ্ট্রের জনগণ৷ যতক্ষণ না প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করবেন, ততক্ষণ প্রেসিডেন্টের ভবন ছেড়ে নড়বেন না সাধারণ মানুষ, এমনটাই জানিয়েছেন তারা৷ এই পরিস্থিতিতে রবিবার আলোচনায় বসছে শ্রীলঙ্কার বিরোধী দলগুলি৷

প্রধান বিরোধী দল, সামাগি জনা বালাওয়েগায়া (এসজেবি), রবিবার অন্যান্য বিরোধী দলের সঙ্গে জোট সরকার গড়ার জন্য বৈঠকের ডাক দিয়েছে৷ এর ফলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসতে পারে এবং রাজাপাকসে পদত্যাগ করতে পারেন বলেই মনে করা হচ্ছে৷ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে হলে প্রয়োজনীয় সদস্য সংখ্যা হলো ১১৩ জন৷ তামিল ন্যাশনাল অ্যালায়েন্সের বিরোধী নেতা এম.এ. সুমন্থিরান বলেছেন যে সমস্ত বিরোধী দল একজোট হলে সহজেই সংসদীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা পূরণ করা সম্ভব৷

প্রধানমন্ত্রী বিক্রমাসিংহে শনিবার বলেছেন, জোট সরকারের ক্ষমতা গ্রহণের পথ প্রশস্ত করতে তিনি পদত্যাগ করবেন৷ প্রেসিডেন্ট রাজাপাকসেও পদত্যাগ করতে সম্মত হয়েছেন৷ কয়েক মাস ধরে প্রেসিডেন্টের অপসারণ চেয়ে পথে নেমেছেন শ্রীলঙ্কার সাধারণ মানুষ৷ শনিবার বিক্ষোভকারীরা রাজাপাকসের বাসভবনে ঢুকে পড়েন৷

বিক্ষোভকারীদের ‘বিলাসী' নিশিযাপন

হাজার হাজার পুরুষ, নারী প্রেসিডেন্টের ভবনে প্রবেশ করেন৷  রাষ্ট্রপতি গোটাবায়া রাজাপাকসের চেয়ারেও বসতে দেখা গিয়েছে তাদের অনেককে৷ ভবনটির গ্রান্ড পিয়ানোও বাজানো হচ্ছিল সেই সময়৷ প্রেসিডেন্টের ভবনের ‘গর্ডন গার্ডেন' পার্কে পরিবারসহ পিকনিক করতে এসেছেন কেউ কেউ৷

গেরুয়া পোশাকের এক বৌদ্ধ ভিক্ষু এসেছিলেন৷ শ্বেতপাথরের প্রাসাদোপম ভবনটি দেখে তিনি বিস্মিত৷ সংবাদসংস্থা এএফপিকে তিনি বলেন, ‘‘নেতারা যখন এমন বিলাসবহুল জীবনযাপন করেন, তখন তাদের কোনো ধারণা থাকে না যে সাধারণ মানুষ কীভাবে জীবনযাপন করেন৷'' ৫০ কিমি পথ পেরিয়ে শ্রী সুমেদা নামে এই বৌদ্ধ ভিক্ষু এসেছেন সেখানে৷ তার কথায়, ‘‘জনগণ যখন ক্ষমতা হাতে নেয়, তখন কী হয়, সেটা এবার বোঝা গেল৷''

রাজধানী কলম্বোতেরাজাপাকসের বাড়িতে বিক্ষোভ শুরুর সময় সেনাবাহিনী গুলি চালিয়েছিল যাতে নৌবাহিনীর সহায়তায় প্রেসিডেন্ট পালিয়ে যেতে পারেন৷ তারপরে তাকে কোথায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে এখনো তা স্পষ্ট নয়৷ সরকারের মুখপাত্র মোহন সমরানায়েক রবিবার জানান, রাজাপাকসের অবস্থান সম্পর্কে তার কাছে কোনও তথ্য নেই৷

বিক্ষোভকারীদের বেশিরভাগইপ্রেসিডেন্টের ভবনে রাত কাটিয়েছেন৷ রবিবার তারা স্পষ্ট জানিয়েছেন, রাজাপাকসে পদত্যাগ না করা পর্যন্ত তারা এই ভবন ছেড়ে কোথাও যাবেন না৷

প্রেসিডেন্টের ব্যক্তিগত পুলে সাঁতার কাটতে দেখা গিয়েছে বিক্ষোভকারীদের অনেককেই
প্রেসিডেন্টের ব্যক্তিগত পুলে সাঁতার কাটতে দেখা গিয়েছে বিক্ষোভকারীদের অনেককেইছবি: AFP

সংবাদসংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ছাত্র সংগঠন সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সংগঠিত করতে বড় ভূমিকা পালন করেছে৷ প্রতিবাদী পড়ুয়ারা রাজাপাকসের ঘরে প্রায় ৪৮ লাখ টাকা (৪৮ হাজার ইউরো) খুঁজে পেয়েছে, এটি তারা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে বলে জানিয়েছে সংবাদসংস্থা৷

প্রেসিডেন্টের ভবনের লাউঞ্জের সোফায়, তার ব্যক্তিগত পুলে সাঁতার কাটতে দেখা গিয়েছে বিক্ষোভকারীদের অনেককেই৷ রাজাপাকসের পোশাকও পরে দেখেছেন কেউ কেউ৷ বছর একষট্টির রুমাল বিক্রেতা বি এম চন্দ্রাবতী৷ তিনি রয়টার্সকে বলেন, ‘‘আমরা যখন ভুগছি৷ তখনও এরা এমন বিলাসিতা উপভোগ করেছে৷ আমাদের প্রতারণা করেছে৷ আমি চেয়েছিলাম আমার সন্তান এবং নাতি-নাতনিরাএ এসে দেখুক নেতারা কেমন বিলাসবহুল জীবনযাত্রা উপভোগ করে৷ তারাও সেই সুযোগ নিক৷''

শ্রীলঙ্কায় জ্বালানি সংকটে অসহায় দীপ্তি

আইএমএফের আলোচনা ব্যাহত

স্বাধীনতার পর সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটের মুখে শ্রীলঙ্কা৷চলতি বছরের এপ্রিলে দেশটির বৈদেশিক ঋণখেলাপির মুখে পড়ে৷ এরপর কর্তৃপক্ষ আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে সম্ভাব্য তিনশো কোটি ডলারের বেলআউট নিয়ে আলোচনা শুরু করে৷ প্রত্যাশিত খাদ্য সংকট মাথায় রেখে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) সঙ্গেও কথা বলে কর্তৃপক্ষ৷

প্রধানমন্ত্রী বিক্রমাসিংহে এই বিষয়ে আলোচনা শুরু করেছিলেন৷কিন্তু রাজনৈতিক উত্থান আলোচনার অগ্রগতিতে প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন বিশোষজ্ঞরা৷ আগস্টে সরকারকে আইএমএফের কাছে একটি প্রস্তাব জমা দিতে হবে৷ ঋণ প্রদানকারী সংস্থা রবিবার জানিয়েছে, ‘‘বর্তমান পরিস্থিতির সমাধান হবে, এমনটাই আশা রাখি৷ এর ফলে আইএমএফ-সমর্থিত প্রোগ্রামের আওতায় ফের আলোচনা শুরু করার অনুমতি মিলবে৷''

শনিবারের (৯ জুলাই) পর থেকে ২০০ বছরের ঐতিহাসিক ভবনটি মানুষের ক্ষমতার নিদর্শন হয়ে রইল এমনটাই বলছেন অনেকে৷ সেইন্ট পিটার স্কোয়ার থেকে একটি বার্তায় পোপ ফ্রান্সিস শ্রীলঙ্কা নিয়ে বার্তা দেন৷ তিনি বলেন, ‘‘সে দেশের সব বিশপদের সঙ্গে আমিও শান্তির আহ্বান জানাচ্ছি৷''

মে মাসে প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের বাইরে শান্তিপূর্ণবিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে রাজাপাকসের অনুগতরা হামলা চালানোর পর দেশজুড়ে সংঘর্ষ শুরু হয়৷ সংঘর্ষে নয়জনের মৃত্যু হয়েছিল এবং শতাধিক জন আহত হন৷

আরকেসি/এডিকে (এপি, এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Bangladesch Wahlen Wahlkampf 2018 Nationalisten BNP

ভোটের আগে জোট নিয়ে টানাটানি

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান