শ্রীলঙ্কাকে আরো সাহায্য দেবে ভারত | বিশ্ব | DW | 08.04.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

শ্রীলঙ্কাকে আরো সাহায্য দেবে ভারত

শ্রীলঙ্কার প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলো ভারত। দিল্লি জানিয়ে দিয়েছে, প্রতিবেশী-প্রথম নীতি নিয়ে ভারত কলম্বোকে আর্থিক সাহায্য দেবে।

শ্রীলঙ্কায় বিক্ষোভ চলছে।

শ্রীলঙ্কায় বিক্ষোভ চলছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী বলেছেন, মার্চের মাঝামাঝি থেকে ভারত ২৫০ কোটি ডলারের ঋণ দিয়েছে। তার মধ্যে দুই লাখ ৭০ হাজার মেট্রিক টন ডিজেল ও পেট্রোলও দিয়েছে। এছাড়া ভারত যে বাড়তি একশ কোটি ডলারের ঋণের সুবিধা কলম্বোকে দিয়েছে, তার মধ্যে ৪০ হাজার মেট্রিক টন চালও দেয়া হয়েছে।

অরিন্দম বাগচী বলেছেন, ''শ্রীলঙ্কার সঙ্গে আমাদের সহযোগিতা গত কয়েক মাসে অনেক বেড়েছে ও শক্তিশালী হয়েছে। ভারত এক্ষেত্রে প্রতিবেশী-প্রথম নীতি নিয়ে চলছে। শ্রীলঙ্কা যাতে এই আর্থিক সংকট থেকে বের হয়ে আসতে পারে, তার জন্য ভারত সবরকম সাহায্য করবে।'' তিনি জানিয়েছেন, ''ভারত হলো শ্রীলঙ্কার বন্ধু রাষ্ট্র। তাই আমরা শ্রীলঙ্কার আর্থিক পরিস্থিতি ও অন্য ঘটনাবলির উপর নজর রাখছি।''

সাবেক ক্রিকেটার জয়সূর্য শ্রীলঙ্কাকে সাহায্য করার জন্য ভারতের প্রশংসা করেছেন। 

তামিলনাড়ুর প্রস্তাব

তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এম কে স্ট্যালিন কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে প্রস্তাব দিয়েছেন যে, তারা শ্রীলঙ্কাকে চাল ও ওষুধ  দিতে চান। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, শ্রীলঙ্কার তামিলদের অবস্থা নিয়ে তিনি চিন্তিত। তাই তিনি শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনের মাধ্যমে সেখানে সাহায্য পাঠাবার অনুমতি চেয়েছেন। স্ট্যালিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গেও কথা বলেছেন এবং তামিলদের দুর্দশা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

চাহিদা বেড়েছে

শ্রীলঙ্কার এই সংকটের ফলে দক্ষিণ ভারতের বস্ত্র ও চা-এর চাহিদা বেড়েছে। শ্রীলঙ্কা থেকে বহু বড় বড় ব্র্যান্ড পোশাক ও চা কিনত। তাদের অনেকে এখন দক্ষিণ ভারত থেকে বস্ত্র ও চা কিনছে। ফলে তামিলনাড়ু পোশাকের হাব ত্রিরুপ্পুরে ব্যস্ততাও বেড়ে গেছে।

শরণার্থীর সংখ্যা বেড়েছে

শ্রীলঙ্কা থেকে আসা শরণার্থীর সংখ্যাও বাড়ছে। ধনুষ্কোড়িতে প্রচুর মানুষ এসেছেন। মণ্ডপম শিবিরে প্রচুর শরণার্থীকে রাখা হয়েছে। শ্রীলঙ্কা থেকে আসা শরণার্থী যোগানাথান নিউজ১৮কে বলেছেন, ভারতের সঙ্গে যদি সুসম্পর্ক রাখত, তাহলে এই সংকট হতো না। কিন্তু শ্রীলঙ্কা চীনের ঋণজালে পড়েছে। তাই এই অবস্থা হয়েছে।

জিএইচ/এসজি (এপি, রয়টার্স, পিটিআই, নিউজ ১৮)