‘শ্রমিক ছাঁটাইয়ের কথা না বললেও পারতেন বিজিএমইএ প্রেসিডেন্ট’ | বিশ্ব | DW | 05.06.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

‘শ্রমিক ছাঁটাইয়ের কথা না বললেও পারতেন বিজিএমইএ প্রেসিডেন্ট’

করোনা ভাইরাস সংকটে শ্রমিক ছাঁটাইয়ের কথা বলে বিতর্কের জন্ম দেওয়া বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক এখনই এ কথা না বললেও পারতেন বলে মনে করেন সালমান এফ রহমান৷

ডয়চে ভেলে বাংলার ইউটিউব চ্যানেলের ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’ আনুষ্ঠানে এসে প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এ কথা বলেন৷

তিনি বলেন, ‘‘গার্মেন্টস শ্রমিকদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী খুব দ্রুত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ মার্চ মাসেই যখন অর্ডার বাতিল হতে শুরু করে তখন আমরা বুঝতে পারি এপ্রিল, মে ও জুন মাসের বেতন নিয়ে সমস্যা হবে৷ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আগে বেতনের সমস্যা সমাধান করতে চাইলেন এবং দ্রুত ব্যবস্থা নিয়ে এ খাতে ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করলেন৷’’ 

সরকারি প্রণোদনা প্যাকেজে অত্যন্ত কম সুদে ঋণ পাওয়ার পরও পোশাক কারখানাগুলো সক্ষমতার অর্ধেক ব্যবহার করে কাজ চালাতে পারছে জানিয়ে বৃহস্পতিবার অনলাইনে এক সংবাদ সম্মেলনে শ্রমিক ছাঁটাই নিয়ে রুবানা বলেছিলেন, ‘‘এটা একটা অনাকাঙ্খিত বাস্তবতা। কিন্তু এই মুহূর্তে কিচ্ছু করার নেই। কারণ, শতকরা ৫৫ ভাগ সক্ষমতায় কারখানাগুলো চললে আমাদের পক্ষে ছাঁটাই ছাড়া আর কোনো উপায় থাকবে না।’’

এ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে সালমান এফ রহমান বলেন, ‘‘যদিও বিজিএমইএ প্রেসিডেন্ট এ (শ্রমিক ছাঁটাইয়ের) কথাটা বলেছেন, কিন্তু আমি মনে করি কী পরিমাণ শ্রমিক ছাঁটাই হবে সেটা বলার সময় এখনো আসেনি৷ এখন ইউরোপ খুলে যাচ্ছে৷ অনেক অর্ডার ফেরত আসছে৷ লকডাউনের প্রভাব তো পড়বেই৷ কিন্তু কতটুকু পড়বে এটা এখনো বোঝা যাচ্ছে না৷ উনি হয়তো মানসিকভাবে প্রস্তুত করার জন্য এ কথা বলেছেন৷ তবে তিনি এ কথাটা না বললেও পারতেন৷’’

এ অনুষ্ঠানের আরেক আলোচক বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করা প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘আমরা ঈদ উপলক্ষ্যে উনার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলাম৷ মূলত উনার স্বাস্থ্যের খোঁজ নিয়েছি৷ উনি দেশে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন এবং বিরোধী দল হিসেবে আমাদের মানুষের কাছাকাছি থেকে মানুষকে যতটুকু সম্ভব সহায়তা করতে বলেছেন৷’’

এ আলোচনায় পুঁজিবাজার, ব্যাংক ঋণের সুদ, করোনা নিয়ন্ত্রণে সরকারের সমন্বয়হীনতাসহ আরো নানা বিষয় উঠে আসে৷

এসএনএল/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন