শেষবেলার পরাজয় থেকে কি এবার মুক্তি? | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 25.06.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপ ক্রিকেট

শেষবেলার পরাজয় থেকে কি এবার মুক্তি?

বিশ্বকাপে আবারো ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশ৷ দূর অতীতে টাইগারদের কাছে বিশ্বকাপে হারার তিক্ত অভিজ্ঞতা আছে প্রতিবেশীদের৷ তবে নিকট অতীতে বড় আসরগুলোতে ম্যাচের শেষপ্রান্তে গিয়ে হেরেছে বাংলাদেশ৷ সোমবার কি সেই অবস্থা বদলাবে?

সোমবার এজবাস্টনে ভারতের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ৷ টাইগারদের সেমিফাইনাল অবধি পৌঁছাতে চাইলে প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে জয় অত্যন্ত গুরুত্ব৷ আবহাওয়া বলছে সেদিন বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম৷ সেক্ষেত্রে ঐতিহাসিক এই ক্রিকেট গ্রাউন্ডে খেলা হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি৷ 

ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি এর মধ্যে জানিয়েছেন, বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচটিকে ‘ফাইনাল' মনে করে খেলবে তাঁর দল৷ কোহলির এই বক্তব্য ম্যাচ নিয়ে তাঁর সিরিয়াসনেসের বহিঃপ্রকাশ নাকি বিদ্রুপ সেটা নিয়ে বির্তক থাকতেই পারে৷ তবে, পরিসংখ্যান কিন্তু ভারতকে অনেক এগিয়ে রাখছে৷ দু'দল একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এখন অবধি মুখোমুখি হয়েছে ৩৫ বার৷ এর মধ্যে ভারত জিতেছে ২৯বার, টাইগাররা পাঁচবার বার৷ বাকি একটি খেলা পরিত্যক্ত হয়েছে৷

তবে, পরিসংখ্যানে এগিয়ে থাকলেও বড় আসরে টাইগারদের কাছে হারের তিক্ত অভিজ্ঞতা রয়েছে ভারতের৷ ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে টাইগারদের কাছে হার দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছিল সেদলের৷ আর ২০১৮ সালে এশিয়া কাপের ফাইনালে তারা জিতেছিল বটে, তবে অপেক্ষা করতে হয়েছিল শেষ বল পর্যন্ত৷ ২০১৬ সালে ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ জিততে জিততে হেরে গিয়েছিল৷

বড় আসরে ভারতের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক পরাজয়গুলো বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় শেষ মুহূর্তে মানসিক চাপের কারণে ভেঙ্গে পড়েছে টাইগাররা৷ অথচ লক্ষ্য থেকে খুব একটা দূরে ছিল না তারা৷ অন্য কোন দল হলে হয়ত সহজেই ম্যাচের সেরকম পরিস্থিতি থেকে জয় নিয়ে ফিরতে পারতো৷

টাইগাররা যে নিজেদের মানসিক দিকটার বেশ উন্নতি করেছে সেটা অবশ্য বোঝা যায় চলতি বিশ্বকাপের দিকে তাকালেই৷ এখন অবধি তিনটি জয় তারা পেয়েছে লড়াকু মানসিকতার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়ে৷ আর যেসব ম্যাচ হেরেছে সেগুলোর দু'টিতে শেষ মুহূর্ত অবধি লড়াইয়ে ছিল তারা৷ বিশেষ করে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আরেকটু হলেই জয় পেয়ে যেতে টাইগাররা৷ অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়া রানের পাহাড় গড়লেও টাইগাররা ব্যাট হাতে ৩৩৩ রান অবধি পৌঁছেছে, ফলে জয়ের ব্যবধান ছিল বেশ কম৷

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে লম্বা বিরতি পাচ্ছে টাইগাররা৷ বোদ্ধাদের মনে করেন এই বিরতি দলটাকে খেলার ক্লান্তি কাটিয়ে পুর্নোদ্দমে মাঠে নামতে সহায়ক হবে৷ যেসব ক্রিকেটারের ছোটখাট ইনজুরি রয়েছে সেগুলোও বিরতিতে কেটে যাবার সুযোগ রয়েছে৷ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে খেলার আগে এরকম বিরতি পেয়েছিল টাইগাররা৷ আর সে খেলার ফলাফলতো সবারই জানা৷

বিরতির এই বিবেচনায় অবশ্য খানিকটা পিছিয়ে রয়েছে ভারত৷ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে মাঠে নামার দু'দিন আগেই তাদের খেলতে হবে ইংল্যান্ডের সঙ্গে৷ ফলে খুব একটা বিশ্রাম পাচ্ছে না কোহলি এন্ড কোং৷ তবে, ভারত চলতি বিশ্বকাপের শিরোপার অন্যতম দাবিদার৷ পাশাপাশি এতকাল স্টেডিয়ামে বাংলাদেশি সমর্থকদের প্রাধান্য দেখা গেলেও ভারতের বিরুদ্ধে সেই পরিস্থিতিতে পরিবর্তন আসছে৷ মাঠে বাংলাদেশি দশর্কদের চেয়ে হয়তো বেশিই থাকবেন ভারতীয় সমর্থকরা৷

তাই এজবাস্টনে লড়াইটা যে কঠিনই হবে সেটা এখনই বলা যায়৷ আর সেই কঠিন লড়াইয়ে জয় ছিনিয়ে আনতে পারলে ক্রিকেট বিশ্বকে আরো একবার নাড়িয়ে দিতে পারবে টাইগাররা৷

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন