শুরুতেই রোহিঙ্গাদের ফেরা নিয়ে অনিশ্চয়তা | বিশ্ব | DW | 22.01.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

রোহিঙ্গা সংকট

শুরুতেই রোহিঙ্গাদের ফেরা নিয়ে অনিশ্চয়তা

বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের দেশে ফেরত পাঠানো শুরু করার কথা ছিল মঙ্গলবার থেকে৷ কিন্তু প্রত্যাবাসনের প্রস্তুতি সম্পন্ন না হওয়ায় এই প্রক্রিয়া শুরু করা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ৷

বাংলাদেশের শরণার্থী সংক্রান্ত ত্রাণ ও পুনর্বাসন কমিশনার আবুল কালাম বার্তা সংস্থা রয়টার্স এবং ডিপিএ-কে বলেন, ‘‘এখনো অনেক কাজ বাকি৷ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু করতে আরও সময় লাগবে৷’’ ঠিক কবে নাগাদ রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো শুরু হবে, সে ব্যাপারেও তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানাতে পারেননি আবুল কালাম৷ তিনি বলেন, ‘‘যাদের ফেরত পাঠানো হবে, তাদের তালিকা তৈরি হয়নি৷ ভেরিফিকেশন ও ট্রানজিট ক্যাম্প স্থাপনের কাজও বাকি রয়েছে৷’’

রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে গত ১৬ জানুয়ারি দুই দেশের মধ্যে যে চুক্তি হয়েছে, তাতে দু'টি রিসেপশন কেন্দ্র থেকে রোহিঙ্গাদের গ্রহণ করার কথা মিয়ানমারের৷ মঙ্গলবার থেকে যা শুরু হয়ে দুই বছর ধরে চলার কথা৷ রোহিঙ্গা শরণার্থীদের গ্রহণ করে মিয়ানমারের রাখাইনে সীমান্তের কাছে একটি অস্থায়ী শিবিরে রাখার কথা রয়েছে৷

প্রত্যাবাসনের জন্য নতুন কোনো তারিখ ঠিক করা হয়নি বলে জানিয়েছেন কালাম৷ তিনি জানান, ‘‘এটি একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া৷ এর সাথে রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তার ব্যাপারটি জড়িয়ে আছে৷ তাই এতে আরও কিছুটা সময় লাগবে৷’’

মিয়ানমারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং অভিবাসন দপ্তর অবশ্য স্থানীয় একটি পত্রিকাকে জানিয়েছেন, মঙ্গলবার থেকে রোহিঙ্গাদের গ্রহণ করার সব প্রস্তুতি তাদের রয়েছে৷

মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, হিউম্যান রাইটস ওয়াচ, মিয়ানমারের মার্কিন রাষ্ট্রদূত এবং জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর সম্প্রতি রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, মিয়ানমারে তাদের জন্য নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে এবং তারা স্বেচ্ছায় ফেরত যেতে চাইলেই কেবল তাদের ফেরত পাঠানো উচিত৷

রবিবার বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ঢাকায় কূটনীতিকদের সাথে এক বৈঠকে জানান, বাংলাদেশ কখনোই রোহিঙ্গাদের দেশে ফিরে যেতে বল প্রয়োগ করবে না৷

গত ২৫শে আগস্ট রাখাইনে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর ৩০টি চৌকিতে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির হামলার পর মিয়ানমারের সেনাবাহিনী নির্বিচারে রোহিঙ্গা নিধন শুরু করে৷ নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে সাড়ে ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে৷

এপিবি/এসিবি (এপি, এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

২৮ নভেম্বরের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন