শীতে ভয়াবহ পরিস্থিতির আশঙ্কায় সতর্ক জার্মানি | বিশ্ব | DW | 29.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

শীতে ভয়াবহ পরিস্থিতির আশঙ্কায় সতর্ক জার্মানি

সংক্রমণ কমে আসায় লকডাউন তুলে নিয়ে চলাফেরা আর সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞাও শিথিল করেছিল জার্মানি৷ তবে গত কয়েক সপ্তাহে সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ঘরে-বাইরে অনুষ্ঠান আয়োজনে নতুন করে শর্ত আরোপের পরিকল্পনা করছে সরকার৷

শীতকালে সংক্রমণ ঠেকাতে ইতোমধ্যে একটি প্রস্তাবনা তৈরি করেছে সরকার৷ সম্প্রতি দলের নেতাদের সাথে এক আলোচনায় চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল সতর্ক করে বলেন যে, ক্রিসমাসের সময়ে দেশটিতে দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা ১৯ হাজার দু'শ পর্যন্ত হতে পারে৷

তাই জনসমাগমে আবার কড়াকড়ির কথাও ভাবা হচ্ছে৷

প্রস্তাবনায় বলা হয়, ঘরোয়া অনুষ্ঠানে ২৫ জনের বেশি এবং ঘরের বাইরের অনুষ্ঠানে ৫০ জনের বেশি লোক একত্রিত হতে পারবে না৷ তাছাড়া বার ও রেস্টুরেন্টে অ্যালকোহল বিক্রির সময়সীমাও বেঁধে দিতে চায় সরকার৷

প্রস্তাবিত এ শর্ত জার্মানির সব অঞ্চলের জন্য সমানভাবে প্রযোজ্য হবে না৷ শুধুমাত্র যে এলাকায় সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতি লক্ষে ৫০ জন পাওয়া যাবে, সে এলাকাতেই এ নির্দেশনা জারি থাকবে৷

দেশটিতে সম্প্রতি সামাজিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নতুন করে বাড়ছে৷ নর্থ রাইন-ওয়েস্টফালিয়া রাজ্যের হাম শহরে কিছুদিন আগে এক বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে ৪০ জন শিশুসহ মোট একশ’ জন সংক্রমিত হয়৷

জনগণের চলাচলের বিষয়ে সঠিক তথ্য সংগ্রহের কথাও বলা হয়েছে প্রস্তাবনায়৷ বার কিংবা রেস্টুরেন্টগুলোকে অতিথিদের পুরো নাম ও ঠিকানা সঠিকভাবে সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে৷ তা না করলে ৫০ ইউরো জরিমানা গুণতে হবে তাদের৷

সরকারের এ প্রস্তাবনা রাজ্য সরকারের সাথে আলোচনার পর চূড়ান্ত হবে৷ জার্মানির ১৬টি রাজ্য আগে করোনা ভাইরাসের বিষয়ে আলাদা পদক্ষেপ নিয়েছিল৷

জার্মানিতে এখন পর্যন্ত প্রায় তিন লাখ লোক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন আর মারা গেছেন দশ হাজার৷ গত ফেব্রুয়ারি মাসে করোনা ভাইরাস ধরা পড়ার পর  প্রথম কয়েক সপ্তাহ আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকে৷ তবে রোগ নির্ণয়, দমন, প্রতিরোধ ও চিকিৎসায় যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করায় কমে আসে সংক্রমণ৷ তবে গত কয়েক সপ্তাহে নতুন করে সংক্রমণ বৃদ্ধি ভাবনায় ফেলেছে সরকারকে৷ 

আরআর/এসিবি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন