শীতে করোনার প্রকোপ বাড়তে পারে: শেখ হাসিনা | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 20.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

শীতে করোনার প্রকোপ বাড়তে পারে: শেখ হাসিনা

শীতে করোনার প্রকোপ ঠেকাতে সবাইকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ এই সময়ে করোনার পরিস্থিতি খারাপের দিকে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি৷

Bangladesh Wahl Sheikh Hasina (PID )

ফাইল ছবি

রোববার গণভবন থেকে এক ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়ে তিনি বলেন, ‘‘করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সবাই আন্তরিকতার সাথে কাজ করেছে৷ সেজন্যই হয়ত আমরা এটা মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছি৷’’

বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম শেখ হাসিনাকে উদ্ধৃত করে লিখেছে, ‘‘তবে সামনে শীত, আরেকটু হয়ত খারাপের দিকে যেতে পারে৷ তবুও আমাদের এখন থেকে প্রস্তুতি থাকতে হবে৷’’

এ পর্যন্ত বাংলাদেশে ৩ লাখ ৪৮ হাজার মানুষের করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৯৩৯ জনের৷

প্রধানমন্ত্রী অর্থনীতি সচল রাখতে সরকারের প্রনোদণা প্যাকেজের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘‘আমরা দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনীতিকে সচল রাখতে কার্যক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি৷ আমরা প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছি এবং যেখানে যা প্রয়োজন তাই দিয়েছি৷ কারণ জনগণের সেবা করাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য৷’’

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে অনুদান দেওয়া হয়৷ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস অনুদান গ্রহণ করেন৷ এর মধ্যে বাংলাদেশ অ্যাসিয়োসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি) ১৬৪ কোটি টাকা, বাংলাদেশ স্থপতি ইন্সটিটিউট ১০ লাখ টাকা, মিনিস্টার গ্রুপ ২৫ লাখ টাকা, খাদ্য মন্ত্রণালয় ৬০ লাখ টাকা, রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ১০ লাখ টাকা, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ১০ লাখ টাকা, বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশন ৪০ লাখ টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে অনুদান দিয়েছে বলে জানানো হয়েছে৷

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘প্রাইভেটে ব্যাংকটা দেওয়ার সিদ্ধান্ত আমরাই নিয়েছিলাম৷ আমরাই দিয়েছি সব থেকে বেশি৷ গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত মানুষ যাতে ব্যাংকিং ব্যবহারে অভ্যস্ত হয়, তার ব্যবস্থাও আমরা নিয়েছি৷ এমনকি কৃষকদের ১০ টাকায় অ্যাকাউন্ট খোলার ব্যবস্থাও করে দিয়েছি৷’’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘আমি মনে করি, সব থেকে বড় কথা আমরা যত বড় প্রাইভেট ব্যাংক দিয়েছি, ব্যাপক হারে কর্মসংস্থান হয়েছে, অনেক মানুষের চাকরি হয়েছে৷… আর আমাদের ব্যবসা বাণিজ্যও সম্প্রসারিত হয়েছে৷ সেখানে ব্যাংকগুলো যাতে ভালোভাবে চলে আমরা সেটাই চাই৷’’

এফএস/এডিকে (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, বিএসএস)

জুলাই মাসের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন