শিশু হত্যার দায়ে মায়ের ১৪ বছর জেল | বিশ্ব | DW | 31.07.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

শিশু হত্যার দায়ে মায়ের ১৪ বছর জেল

জার্মানির বাভারিয়ার এক বাড়ি থেকে কিছুদিন আগে আট শিশুর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনা তোলপাড় সৃষ্টি করে৷ সেই শিশুদের মায়ের ১৪ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে৷ তবে তার স্বামীকে মুক্তি দেয়া হয়েছে৷

বাভারিয়ার উত্তরাঞ্চলের এক আঞ্চলিক আদালত সম্প্রতি এই রায় ঘোষণা করে৷ ৪৫ বছর বয়সি মায়ের বিরুদ্ধে চারটি নরহত্যার দায়ে ১৪ বছরের কারাদণ্ডের রায় দেয়া হয়৷ আলোচিত নারী তার কয়েক সন্তানকে জন্মের পরে হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছিল৷

গত বছরের নভেম্বরে এক বাড়ি থেকে আট শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়, যেগুলো তোয়ালেতে মোড়া ছিল৷ বাড়িটিতে একসময় সেই মহিলা এবং তার স্বামী সহবাস করতেন৷ তদন্তকারীরা চারটি শিশুকে হত্যা করা হয়েছে বলে নিশ্চিত হন, বাকি তিনটি মরদেহ এতটাই পচে গিয়েছিল যে সেগুলোকে হত্যা করা হয়েছে নাকি মৃত অবস্থায় জন্ম নিয়েছিল, তা পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যায়নি৷ আর একটি শিশু মৃত জন্ম নিয়েছিল৷

সেই নারীর স্বামীর বিরুদ্ধে হত্যায় সহায়তার অভিযোগ আনা হলেও তা প্রামণ করা যায়নি৷ ফলে আদালত তাঁকে মুক্তি দিয়েছে৷

উল্লেখ্য, জার্মানিতে এভাবে শিশু হত্যা খুবই বিরল ঘটনা৷ সন্তান জন্ম দেয়ার পর কোনো মা সে সন্তান না চাইলে জার্মানির বিভিন্ন শহরে এক ধরনের বাক্স রয়েছে, যেখানে শিশুটিকে রেখে আসার ব্যবস্থা রয়েছে৷ রেখে আসা শিশুকে সেক্ষেত্রে দত্তক দেয়া হয় এবং মায়ের পরিচয় পুরোপুরি গোপন রাখা হয়৷

এআই/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ)

জার্মানিতেও যে শিশু হত্যার মতো ঘটনা ঘটতে পারে, সেটা ভাবতে পেরেছিলেন? লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন