শিশু ধর্ষণ, যৌন হয়রানির আইন কঠোর করল ফ্রান্স | বিশ্ব | DW | 03.08.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ফ্রান্স

শিশু ধর্ষণ, যৌন হয়রানির আইন কঠোর করল ফ্রান্স

রাস্তাঘাটে যৌন হয়রানির জন্য জরিমানা এবং ১৫ বছরের কম বয়সি শিশুর সঙ্গে যৌনতাকে ধর্ষণ হিসেবে বিবেচনার বিধান রেখে ফ্রান্সের পার্লামেন্টে নতুন একটি আইন পাস হয়েছে৷

যৌন সহিংসতার বিরুদ্ধে নতুন একটি কঠোর আইন পাস করেছে ফ্রান্সের পার্লামেন্ট, যাকে ইউরোপীয় দেশটিতে ব্যাপক সামাজিক পরিবর্তেনর ইঙ্গিত হিসেবে অভিহিত করছে দেশটির সরকার৷

আগামী সেপ্টেম্বরে নতুন এই আইন কার্যকর হওয়ার কথা রয়েছে৷

এই আইনের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দিক হচ্ছে, প্রাপ্তবয়স্ক কোনো ব্যক্তি ১৫ বছরের কম বয়সি কোনো মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করলে তা ধর্ষণ হিসেবে বিবেচিত হওয়ার পথ সুগম হয়েছে৷

ফ্রান্সের বিদ্যমান আইনে ১৫ বছরের কম বয়সিদের সঙ্গে যৌনতা অপরাধ হিসেবে গণ্য হয়৷ তবে তা ধর্ষণ হিসেবে বিবেচনার জন্য প্রসিকিউটরদের প্রমাণ করতে হয় যে, জোর করে শিশুটির সঙ্গে এটা করা হয়েছে৷

এর সুযোগ নিয়ে গত নভেম্বরে ১১ বছরের একটি শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ থেকে খালাস পান ৩০ বছরের এক ব্যক্তি৷ ওই ঘটনায় নির্যাতিতার সম্মতি না থাকার বিষয়টি প্রমাণে ব্যর্থ হয়েছিলেন আইনজীবীরা৷

এরপর গত ফেব্রুয়ারিতে ২৮ বছরের এক ব্যক্তি এবং ১১ বছরের আরেক শিশুর একই ধরনের ঘটনা নিয়ে ক্ষোভ দেখা দেয়৷

নতুন এই আইন শিশুদের সঙ্গে যৌন অপরাধে নিরুৎসাহিত করবে বলে মন্তব্য করেছেন ফ্রান্সের লৈঙ্গিক সমতা বিষয়ক জুনিয়র মন্ত্রী মারলিন শিয়াপা৷

যৌন হয়রানির জরিমানা

রাস্তায় বা গণপরিবহণে যৌন হয়রানির জন্য তাৎক্ষণিকভাবে জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে এই আইনে৷ এজন্য যৌন নিপীড়ককে ৯০ থেকে ৭৫০ ইউরো পর্যন্ত গুণতে হবে৷

আইনে কারও অনুমতি ছাড়া পোশাকের নীচ দিয়ে শরীরের ছবি তোলার জন্য ১৫ হাজার ইউরো পর্যন্ত জরিমানা এবং এক বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে৷

এই সপ্তাহের শুরুর দিকে রাস্তায় যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় এক নারীকে একজনের মারধরের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে ফ্রান্সে নতুন করে বিতর্ক শুরু হয়৷

এএইচ/ডিজি

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন