শিশুদের যৌন উত্তেজক ভিডিও প্রকাশ, ইউটিউব তারকার কারাদণ্ড | বিশ্ব | DW | 12.05.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

শিশুদের যৌন উত্তেজক ভিডিও প্রকাশ, ইউটিউব তারকার কারাদণ্ড

যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোর একটি আদালত এক ইউটিউব তারকার ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে৷ তার বিরুদ্ধে অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়ে শিশুদের যৌন উত্তেজক ভিডিও তৈরি করতে উৎসাহিত করার অভিযোগ রয়েছে৷

অস্টিন জোনস গান গেয়ে ভিডিও প্রস্তুত করে অনলাইনে প্রকাশ করতেন৷ তার ভক্তরা মূলত টিনএজ মেয়ে৷

২০১৭ সালে অস্টিনকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ ২০১৯ সালের শুরুতে তিনি এই ঘটনায় তার অপরাধ স্বীকার করেন৷

ছয়টি মেয়ের কাছ থেকে এ ধরনের ভিডিও আনার কথা অস্টিন স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছেন মামলার আইনজীবী৷ আরো ৩০ জন মেয়েকে অন্যদের কাছ থেকে এমন ভিডিও আনতে বলার কথাও স্বীকার করেছেন অস্টিন৷ 

শুক্রবার এক ফেডারেল আদালতের বিচারক ২৬ বছর বয়সি এই ইউটিউবারকে ১০ বছরের সাজা দিয়েছেন৷ অপরাধের প্রকৃতি অনুযায়ী ৫ থেকে ২০ বছরের সাজার বিধান রয়েছে আইনে৷

অস্টিনের পাঠানো বিভিন্ন টেক্সট ম্যাসেজের সূত্র ধরে আইনজীবীরা তার অপরাধ প্রমাণ করতে সমর্থ হয়েছেন৷ তাঁরা জানিয়েছেন, অস্টিন অডিশনের কথা বলে মেয়েদের এমন কাজে প্রলুব্ধ করতেন৷

আদালতে জমা দেয়া প্রমাণের একটিতে দেখা যায়, ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে ১৪ বছরের এক মেয়েকে জোনস বলছেন, ‘‘আমি শুধু তোমাদের সাহায্য করার চেষ্টা করছি৷ আমি জানি তোমরা নিজেদের আমার সবচেয়ে বড় ভক্ত প্রমাণের চেষ্টা করছো৷ এবং আমিও চাই না, অন্য কাউকে খুঁজে নিতে৷''

আইনজীবীরা জানান, ফেসবুক ম্যাসেঞ্জার ব্যবহার করে ১৪-১৫ বছর বয়সি মেয়েদের সঙ্গে অস্টিনের এমন আলাপচারিতার তথ্য কর্তৃপক্ষই ‘ন্যাশনাল সেন্টার ফর মিসিং অ্যান্ড এক্সপ্লয়টেড চিলড্রেন'-কে জানিয়েছে৷

অস্টিনের আইনজীবী অবশ্য সাজা কমিয়ে পাঁচ বছর করার আবেদন জানিয়েছিলেন৷ আদালতকে তিনি বলেন, ‘‘অস্টিন নিজেই ছয় বছর থেকে ১০ বছর বয়স পর্যন্ত নিজের বাবার কাছে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছে৷ সে ছোট, ভীত এবং অসহায় ছিল৷''

আদালতে তাঁরা দাবি করেন, অস্টিন বিষন্নতা ও অন্যান্য মানসিক সমস্যায় ভুগছেন৷

এডিকে/এসিবি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন