শিশুদের জন্য ২০১৭ ছিল দুঃস্বপ্নের বছর: ইউনিসেফ | বিশ্ব | DW | 28.12.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

শিশুদের জন্য ২০১৭ ছিল দুঃস্বপ্নের বছর: ইউনিসেফ

ইউনিসেফ-এর মতে, সংঘাতপূর্ণ এলাকার শিশুদের জন্য ২০১৭ সাল ছিল অন্যতম ভয়াবহ একটি বছর৷ মানবঢাল, আত্মঘাতী বোমা হামলাকারীসহ নানা কাজে ঐ সব এলাকার শিশুদের ব্যাপকহারে ব্যবহার করা হয়েছে৷

শিশুদের রক্ষা করার ক্ষেত্রে ২০১৭ সালে যুদ্ধে লিপ্ত দলগুলো আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন করেছে  বলে জানিয়েছেন ইউনিসেফ-এর এক কর্মকর্তা৷

জাতিসংঘের এই সংস্থার এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, বিশ্বের সংঘাতপূর্ণ এলাকা এবং যেখানে যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করছে, সেসব জায়গায় বিপুল সংখ্যক শিশুকে হত্যা করা হয়েছে৷ এদের মধ্যে অনেককে মানবঢাল হিসেবে কিংবা সরাসরি যুদ্ধে ব্যবহার করা হয়েছে৷ ইউনিসেফ-এর জরুরি কর্মসূচির পরিচালক ম্যানুয়েল ফন্টেইন বলেছেন, ‘‘বাড়ি, স্কুল এবং খেলার মাঠে শিশুরা ভয়াবহ হামলা ও সহিংসতার শিকার হয়েছে৷ যেহেতু কিছু এলাকায় বছরের পর বছর ধরে হামলা চলছে, আমরা যেন এটাকে স্বাভাবিক বলে ধরে না নেই৷ এভাবে চলতে দেয়া উচিত নয়৷''

আফ্রিকায় শিশুদের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ

রিপোর্টে বলা হয়েছে, আফ্রিকার সংঘাতপূর্ণ এলাকাগুলোতে শিশুদের সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হচ্ছে৷ ডিআর কঙ্গোতে প্রায় ১০ লাখ শিশু গত এক বছরে গৃহহীন হয়েছে বা অন্যত্র চলে গিয়েছে৷ সেখানে ৪০০টিরও বেশি স্কুলে হামলা চালানো হয়েছিল৷

নাইজেরিয়া এবং ক্যামেরুনে ইসলামি জঙ্গি গোষ্ঠী বোকো হারাম এ বছর ১৩৫ জন শিশুকে আত্মঘাতী হামলাকারী হিসেবে প্রশিক্ষণ দিয়েছে, যা গত বছরের তুলনায় পাঁচগুণ বেশি৷

দক্ষিণ সুদানে ২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১৯ হাজার শিশুকে জোর করে সেনাবাহিনীতে নিয়োগ দেয়া হয়েছে৷

মধ্যপ্রাচ্য সংকট

ইউনিসেফ-এর তথ্য অনুযায়ী, ইয়েমেনে ২০১৫ সালের মার্চে গৃহযুদ্ধ শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ৫ হাজার শিশু প্রাণ হারিয়েছে৷ বর্তমানে ২০ লাখ শিশু খাদ্যের অভাবে ভয়াবহ অপুষ্টিতে ভুগছে৷

এপিবি/জেডএইচ (এপি, এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন