শাল্লায় হামলা: ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি গ্রেপ্তার | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 20.03.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

শাল্লায় হামলা: ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি গ্রেপ্তার

বাংলাদেশের সুনামগঞ্জের শাল্লায় হিন্দুদের গ্রামে হামলায় ‘মূল আসামি' শহীদুল ইসলাম স্বাধীন ওরফে স্বাধীন মেম্বারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷  তিনি স্থানীয় ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য৷

বাংলাদেশের সুনামগঞ্জের শাল্লায় হিন্দুদের গ্রামে হামলায় ‘মূল আসামি' শহীদুল ইসলাম স্বাধীন ওরফে স্বাধীন মেম্বারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷  তিনি স্থানীয় ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য৷

হামলা চালিয়ে ৬০-৭০টি বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়৷

শনিবার ভোর রাতে মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম সিলেটে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআইয়ের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. খালেদ উজ জামানকে উদ্ধৃত করে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে৷ তিনি বলেন, ‘‘শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামে হামলায় মূল আসামি শহীদুল ইসলাম স্বাধীন৷ গ্রেপ্তার করার পর তাকে কুলাউড়া থেকে পিবিআইয়ের সিলেট কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়েছে৷’’

গত ১৭ মার্চ হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হকের সমালোচনা করে পোস্ট দেয়ার জেরেসুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলায় হিন্দু পল্লীতে হামলা চালানো হয়৷ ৬০-৭০টি বাড়িঘর ভাঙচুর করে দুর্বৃত্তরা৷ পুলিশ সে সময় বলেছিল, ‘হেফাজতে ইসলামীর অনুসারীরা’ ওই হামলা চালায়৷ তবে হামলায় নেতৃত্বদাতা হিসাবে স্বাধীন মেম্বারের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে৷

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের তথ্য অনুযায়ী, ঘটনার পরদিন শাল্লা থানায় দুটি মামলা দায়ের করা হয়৷ এর মধ্যে পুলিশের করা মামলায় ‘অজ্ঞাতপরিচয়’ দেড় হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে৷ অন্যদিকে হবিবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিবেকানন্দ মজুমদার বকুলের করা মামলায় ৮০ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতপরিচয় আরও ১০০ জনকে আসামি করা হয়৷ স্বাধীনসহ মোট ২৩ জনকে এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷

এফএস/এডিকে (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়