শরণার্থী সমস্যা: পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে সরব অ্যামনেস্টি | বিশ্ব | DW | 30.09.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পোল্যান্ড

শরণার্থী সমস্যা: পোল্যান্ডের বিরুদ্ধে সরব অ্যামনেস্টি

আফগান শরণার্থীদের পোল্যান্ড দেশ থেকে বার করে দিয়েছে বলে অভিযোগ। শরণার্থীরা বেলারুশে আশ্রয় নিয়েছেন।

শক্তি প্রদর্শন করে পোল্যান্ডের পুলিশ আফগান শরণার্থীদের সীমান্ত পেরিয়ে বেলারুশে যেতে বাধ্য করেছে বলে অভিযোগ উঠল। অভিযোগ করেছে মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। তাদের বক্তব্য, ওই শরণার্থীরা তালেবানের ভয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়েছিলেন। বেলারুশের সীমান্ত পেরিয়ে তারা পোল্যান্ডের বর্ডারে আশ্রয় নিয়েছিলেন। আশ্রয়শিবিরও তৈরি করেছিলেন। পোল্যান্ডের পুলিশ তাদের ফের বেলারুশে পাঠিয়ে দিয়েছে। দেশের সীমান্তও পোল্যান্ড সিল করে দিয়েছে বলে অভিযোগ।

বৃহস্পতিবার অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বিবৃতি দিয়ে জানিয়ছে, তাদের কাছে তথ্যপ্রমাণ আছে। মানবাধিকার সংগঠনগুলিকে পোল্যান্ড দেশে ঢুকতে না দিলেও স্যাটেলাইট ছবিতে পরিষ্কার, রীতিমতো শক্তি প্রদর্শন করে পোল্যান্ডের পুলিশ ওই শরণার্থীদের সরিয়ে দেয়।

অ্যামনেস্টির হিসেবে মোট ৩২ জন শরণার্থী ছিলেন। তাদের মধ্যে শিশু এবং নারীরাও ছিলেন। আপাতত ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে তারা বেলারুশের সীমান্তে বসবাস করছেন। জল, খাবার কিছুই নেই তাদের কাছে। ঠান্ডাতেও কষ্ট পাচ্ছেন তারা।

অ্যামনেস্টির বক্তব্য, স্যাটেলাইট ছবিতে দেখা যাচ্ছে, গত ১৮ অগাস্ট ওই শরণার্থীদের রাতারাতি পোল্যান্ড থেকে বেলারুশে যেতে বাধ্য করে পোল্যান্ডের পুলিশ। এরপর দেশের ৪১৮ কিলোমিটারের সীমান্ত সিল করে দেওয়া হয়। জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়। সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী কাউকেই পোল্যান্ডে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না।

অ্যামনেস্টির অভিযোগ, যে কায়দায় পোল্যান্ড শরণার্থীদের ফিরিয়ে দিয়েছে, তা আন্তর্জাতিক আইন বিরোধী। এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ। তবে পোল্যান্ড এখনো পর্যন্ত অভিযোগের জবাব দেয়নি।

বৃহস্পতিবার ওয়ারশ-তে ইউরোপীয় ইউনিয়নের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের কমিশনারের সঙ্গে পোল্যান্ডের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক হওয়ার কথা। তার আগে তথ্যসহ রিপোর্ট প্রকাশ করেছে অ্যামনেস্টি। ডিডাব্লিউকে সূত্র জানিয়েছে, বৃহস্পতিবারই পোল্যান্ডে জরুরি অবস্থা আরো ৬০ দিনের জন্য বাড়িয়ে দেওয়া হতে পারে। এর ফলে আরো ৬০ দিন সীমান্ত সিল করে রাখা হবে।

এসজি/জিএইচ (ডিপিএ, এএফপি, রয়টার্স)