শরণার্থী বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক-ত্রিপাক্ষিক চুক্তি চান ম্যার্কেল | বিশ্ব | DW | 24.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইউরোপ

শরণার্থী বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক-ত্রিপাক্ষিক চুক্তি চান ম্যার্কেল

আগামী সপ্তাহের ইইউ সম্মেলনে শরণার্থী বিষয়ে ইউরোপীয় সমাধান হবে বলে মনে করছেন না জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷ সেই সম্মেলনের আগে রোববার একটি মিনি সম্মেলনে মিলিত হয়েছেন ইইউ নেতারা৷ 

ব্রাসেলসে অভিবাসন নিয়ে এই মিনি সম্মেলনে জার্মান চ্যান্সেলরকে স্বাগত জানান ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জ্যঁ ক্লদ ইউঙ্কার৷ ম্যার্কেল মনে করেন না আগামী বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিতব্য ইইউ সম্মেলনে শরণার্থী বিষয়ে ইউরোপীয় সমাধান আসবে৷ তাই মিনি সম্মেলনে তিনি দ্বিপাক্ষিক বা ত্রিপাক্ষিক সমাধানের ওপর জোর দেন৷ 

রোববার দুপুরে মিনি সম্মেলনে ম্যার্কেলের বক্তব্য ছিল, ২৮ ইইউ রাষ্ট্র প্রত্যেকেই নিজ নিজ স্বার্থ রক্ষার কথা চিন্তা করে একটি সমাধানে আসতে যতটা অপেক্ষা করতে হবে, তার চেয়ে ইইউকে দেখতে হবে কীভাবে সবাই সমস্যা সমাধানে একে অপরকে সহযোগিতা করতে পারে৷  

তাঁর বক্তব্যে সায় দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ৷ 

১৬টি ইউরোপীয় দেশের নেতারা এই মিনি সম্মেলনে যোগ দেন৷ বিশেষ করে জার্মানিতে শরণার্থী বিষয়ে চলা অভ্যন্তরীণ জটিলতা নিরসন ও ভূমধ্যসাগরে শরণার্থীদের বহনকারী একটি এনজিও জাহাজ নিয়ে সম্প্রতি ইইউ রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে বিতণ্ডা চলার পর এই মিনি সম্মেলনের আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়৷ 

সম্প্রতি জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ম্যার্কেলের দল সিডিইউ’র সহযোগী সিএসইউ’র নেতা সেহোফার অভিবাসন বিষয়ক একটি ‘মাস্টারপ্ল্যান’ তৈরি করেন৷ কিন্তু ম্যার্কেলের সঙ্গে মতের মিল না হওয়ায় এখনও তা প্রকাশ করা হয়নি৷ জানা গেছে, যেসব শরণার্থী ইউরোপের অন্য দেশে নিবন্ধিত হয়েছেন, তাঁদেরকে জার্মান সীমান্ত থেকে ফিরিয়ে দিতে চান সেহোফার৷ তবে ম্যার্কেল এই পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করেছেন৷ তিনি শরণার্থী সংকটের একটি ইউরোপীয় সমাধান চান৷
এ অবস্থায় জার্মান সরকার ভেঙ্গে যাওয়ার শঙ্কা দেখা দেয়৷ সেহোফার ম্যার্কেলকে দু’সপ্তাহের সময় দেন৷ 

জেডএ/ডিজি (রয়টার্স, এপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়