শপথ নিলেন জার্মানির দশম প্রেসিডেন্ট ভুল্ফ | বিশ্ব | DW | 02.07.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

শপথ নিলেন জার্মানির দশম প্রেসিডেন্ট ভুল্ফ

শপথ গ্রহণ করলেন জার্মানির দশম প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টিয়ান ভুল্ফ৷ তাঁর প্রথম ভাষণেই তিনি দেশের বিভিন্ন অংশের মধ্যে এক সেতুবন্ধ তৈরির কাজে ব্রতী হবার অঙ্গীকার করলেন৷

default

শপথ নিচ্ছেন জার্মানির দশম প্রেসিডেন্ট ভুল্ফ

গত বুধবার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তৃতীয় দফায় ভোটাভুটির পর তিনি বিজয়ী হন৷

জার্মানির ইতিহাসে ক্রিস্টিয়ান ভুল্ফ-ই হলেন সর্বকনিষ্ঠ প্রেসিডেন্ট৷ তবে জার্মানির রাজনৈতিক অঙ্গনে তিনি এক পরিচিত মুখ৷ বার্লিনে জার্মান সংসদের নিম্ন ও উচ্চ কক্ষ বুন্ডেসটাগ ও বুন্ডেসরাট-এর এক যৌথ অধিবেশনে শপথবাক্য উচ্চারণ করলেন নতুন প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টিয়ান ভুল্ফ:

‘‘আমি শপথ করছি যে জার্মান জনগণের কল্যাণে আমার শক্তি আমি নিয়োজিত করব, তাদের ভাল করব, তাদের ক্ষতি হতে দেব না, ফেডারেল রাষ্ট্রের সংবিধান ও আইন রক্ষা করব ও সমুন্নত রাখব, বিবেকবান থেকে আমার দায়দায়িত্ব পালন করব এবং প্রতিটি মানুষের প্রতি সুবিচার করব৷ ঈস্বর আমার সহায় হোন৷''

প্রেসিডেন্ট ভুল্ফ তাঁর ভাষণে দেশের বিভিন্ন অংশের মধ্যে সেতুবন্ধ তৈরি আর জার্মানিতে বসবাসরত অভিবাসী মানুষদের এদেশের সমাজে আরও ভালভাবে সম্পৃক্ত করার ওপর জোর দেন৷ বলেন, ‘‘আমাদের বহুমুখিতা কখনও কখনও খুবই শ্রমসাধ্য হয়ে ওঠে৷ কিন্তু পরিশেষে তা শক্তি ও ধ্যানধারণার এক উৎস হয়ে দেখা দেয় এবং ভিন্ন চোখ দিয়ে ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে জগতকে দেখার সম্ভাবনা তৈরি করে দেয়৷''

রাইখসটাগ সংসদ ভবনে উপস্থিত সবাইকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমার জন্য এটি একটি স্মরণীয় মুহূর্ত৷ আমি আনন্দিত৷ আমি জানি আমি নিতে যাচ্ছি বিশাল এক দায়িত্ব৷ প্রেসিডেন্ট হিসেবে যে সব দায়িত্ব আমার কাঁধে বর্তাবে তার প্রতিটিই আমাকে নির্ভুলভাবে পালন করতে হবে৷ আমাকে জার্মানির প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ দেওয়ার জন্য আমি আপনাদের সবার কাছে কৃতজ্ঞ৷ আমি আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি৷

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইওয়াখিম গাউকের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, নাগরিক অধিকার রক্ষায় আপনি যা করেছেন, যেভাবে সোচ্চার ছিলেন তা জার্মানির মানুষ দেখেছে, মনে রেখেছে৷ ভবিষ্যতেও আপনি আপনার কাজ চালিয়ে যাবেন আমরা সে প্রত্যাশাই করছি৷ শান্তি, স্বাধীনতা এবং গণতন্ত্রের জন্য আপনার ভালবাসা, আপনার উৎকন্ঠা আপনি সবার মাঝে ছড়িয়ে দিন৷

আজ রাতে প্রেসিডেন্টের বাসভবন বেলভ্যু প্রাসাদে উৎসবে মিলিত হবেন নিমন্ত্রিত কয়েক হাজার অতিথি৷ চলবে, গান, নাচ৷ পুড়বে আতশবাজি৷

প্রতিবেদন: মারিনা জোয়ারদার

সম্পাদনা: আবদুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন