লেহ’এর মেঘভাঙ্গা বৃষ্টির কারণ ভূমন্ডলীয় উষ্ণায়ন | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 10.08.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

লেহ’এর মেঘভাঙ্গা বৃষ্টির কারণ ভূমন্ডলীয় উষ্ণায়ন

প্রাকৃতিক ধ্বংসলীলার নেপথ্য কারণ মানবজাতির হঠকারিতা৷ গ্লোবাল ওয়ার্মিং বা ভূমন্ডলীয় উষ্ণায়ন অনেকটাই দায়ী এজন্য - এমনটাই বলছেন পুণের ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ ট্রপিক্যাল মেটিওরলজির আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা৷

default

উত্তর গোলার্ধের স্বাভাবিক গড় তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস৷ কিন্তু এটা বেড়ে পৌঁছেছে প্রায় ১৬ ডিগ্রির কাছাকাছি৷ ফলে নিম্নচাপ উত্তর-পশ্চিম দিকে সরে গিয়ে লেহতে বর্ষা বাতাস হয়ে ঢোকে৷ সাধারণতঃ লেহ'তে শুষ্ক অঞ্চলের তুলনায় বৃষ্টি কম হয়৷

উত্তর গোলার্ধ থেকে আসা শুষ্ক, ঠান্ডা মেরুদেশীয় হাওয়া যখন দক্ষিন গোলার্ধ থেকে আসা গরম, আর্দ্র, বর্ষাকালিন বাতাসের সঙ্গে মেশে, তখনই হয় মেঘভাঙ্গা বৃষ্টি- বলেন গ্রীষ্মমন্ডলীয় আবহাওয়া প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞানী নিত্যানন্দ সিং৷

উল্লেখ্য, লেহ'এর মেঘভাঙ্গা বৃষ্টিতে ও হড়কা বানে মারা যায় ১৬৫ জন৷ নিঁখোজ প্রায় ৫০০৷ তিনি বলেন, পাকিস্তান, চীন, তিব্বত, মাঞ্চুরিয়া ও অন্যান্য দেশে এবছর যে চরম আবহাওয়া অনুভূত হয়েছে, তার কারণ দক্ষিন-পূর্ব এশিয়ায় বর্ষাকালিন বৃষ্টিপাতের ওপর উষ্ণায়নের প্রভাব৷

কী করে হয় মেঘভাঙ্গা বৃষ্টি যাকে বলে ক্লাউডবার্স্ট৷ সাধারণত বর্ষাকালে ১৫ থেকে ২০ কিলোমিটার উচ্চতায় জলভরা উল্লম্ব মেঘ ভেঙ্গে এই বৃষ্টি হয়৷ ঐ মেঘ বঙ্গোপসাগর বা আরব সাগর থেকে সমতল পেরিয়ে পাহাড়ের দিকে যায়৷ পাহাড়ের গা বেয়ে ক্রমশ উঁচুতে ওঠে৷ এক সময়ে তার মধ্যে জলের ঘনত্ব এতটাই বেশি হয় যে, মেঘ তা ধরে রাখতে পারেনা৷ বিপুল উচ্চতা থেকে ঐ মেঘের সব জলকণা একসঙ্গে বৃষ্টি আকারে ঝরে পড়ে একটি ছোট জায়গায়৷ উপমহাদেশে সাধারণত বর্ষাকালে এমন মেঘ তৈরি হয়৷ তবে পশ্চিমি ঝঞ্ঝার কারণে পাহাড়ি এলাকাতে শীতের মুখেও হতে পারে৷

গ্রীষ্মমন্ডলীয় আবহ প্রতিষ্ঠানের অপর বিজ্ঞানী জে.আর কুলকার্নি জানান যে, লেহ'এর মত পাহাড়ি এলাকায় অটোমেটিক আবহাওয়া কেন্দ্র ও ব়্যাডার থাকা জরুরি৷ ব়্যাডার প্রতি ৬ মিনিটে মেঘের গতিপ্রকৃতি নিরীক্ষণ করে সতর্ক সঙ্কেত দিতে পারবে তিন ঘন্টা আগে৷ ফলে ক্ষয়ক্ষতি অনেক কম হবার সম্ভাবনা থাকে৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

ইন্টারনেট লিংক