লাইপজিগে প্রতিবাদ বিক্ষোভ নিয়ে তুমুল বিতর্ক | বিশ্ব | DW | 10.11.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

লাইপজিগে প্রতিবাদ বিক্ষোভ নিয়ে তুমুল বিতর্ক

জার্মানিতে আবারো করোনা ভাইরাস বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ বিক্ষোভ হয়৷ লাইপজিগে হওয়া বিক্ষোভে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ হয়৷ এই নিয়ে দেশের রাজনীতি, পুলিশ ও বিচার বিভাগে শুরু হয়েছে তুমুল বিতর্ক৷

সোমবার জার্মানির এক শীর্ষ রাজনীতিবিদ জাসকিয়া এসকেন দক্ষিণপন্থি প্রতিবাদ বিক্ষোভে সহিংসতার বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ না নেওয়ায় কর্তৃপক্ষকে দোষারোপ করেন৷ প্রতিবাদটি হয় করোনাভাইরাস বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে গত শনিবার, যেখানে প্রতিবাদকারীরা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়৷

লাইপজিগের বিক্ষোভের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন জার্মানির আইনমন্ত্রী মন্ত্রী ক্রিস্টিনে ল্যামব্রেস্ট এবং বিষয়টি স্পষ্ট করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি ৷

তিনি বলেন, ‘‘আমরা শনিবার লাইপজিগে যা দেখেছি তা কোনোভাবেই ন্যায়সঙ্গত নয়৷ প্রতিবাদ করার স্বাধীনতার অর্থ সহিংসতা বা অন্যকে ঝুঁকির মুখে ফেলার নয়৷ মহামারির এই সময়ে এমন পরিস্থিতির পুনরাবৃত্তি হওয়া কখনো উচিত নয়৷’’ জার্মানিতে করোনা সংক্রমণের হার যেভাবে বাড়ছে, এই পরিস্থিতে মাস্ক ছাড়া প্রতিবাদ বিক্ষোভে হাজারো মানুষের অংশগ্রহণ দায়িত্বহীনতার পরিচয়৷

প্রতিবাদকারীরা সাংবাদিকদের ওপরও আক্রমণ করায় জার্মানির এফডিপি দলে স্বরাষ্ট্র বিষয়ক মুখপাত্র কন্সটান্টিন কুলে বলেন, ‘‘সাংবাদিকেরা তাদের কাজে বাধাগ্রস্ত হয়, যা কর্তৃপক্ষের নজর এড়িয়ে গেছে৷’’

জার্মানির সবুজ দলের চেয়ারম্যান রবার্ট হাবেক লাইপজিগের প্রতিবাদ বিক্ষোভের ঘটনার স্পষ্ট ব্যাখ্যা দাবি করে বলেন, ‘‘সমাবেশে স্বাধীনতা জরুরি, তবে অন্যের স্বাধীনতা এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিধিনিয়ম মানাও জরুরি৷’’

তবে জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হর্স্ট জেহোফার জানান, পুলিশের নেওয়া পদক্ষেপের প্রতি তাঁর সমর্থন রয়েছে৷

এনএস/কেএম (ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন