‘রোহিঙ্গা′ সংকট নিয়ে পাঠকরা যা ভাবছেন | পাঠক ভাবনা | DW | 01.11.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘রোহিঙ্গা' সংকট নিয়ে পাঠকরা যা ভাবছেন

এক মাসে হত্যাসহ বিভিন্ন অপরাধে গ্রেপ্তার হয়েছে অন্তত ৩০ জন রোহিঙ্গা৷ এসব কারণেই পাঠকদের অনেকে রোহিঙ্গাদের ওপর তাদের রাগ, দুঃখ আর আতঙ্কের কথা তুলে ধরেছেন ফেসবুক পাতায়৷ তবে রোহিঙ্গাদের প্রতি সহানুভূতিও জানিয়েছেন অনেকে৷  

‘‘এইভাবে চলতে থাকলে বাংলাদেশের কেউ রোহিঙ্গাদের সহ্য করবে না৷ তাদের দেশ থেকে বিতাড়িত করা হবে৷''  এই মন্তব্য ডয়চে ভেলের পাঠক সুমন সরকারের৷ তিনি মনে করেন, ‘ইয়াবা' নেশা বাংলাদেশে আনার জন্য রোহিঙ্গারাই দায়ী এবং  ‘‘এদের মধ্যেই আছে এইচআইভি বা এইডসের বীজ৷'' সুমন সরকার একেবারে নিশ্চিত হয়ে লিখেছেন, ‘‘বানিয়ে কিছুই বলছি না, যাঁদের সন্দেহ আছে তাঁরা খোঁজ নিয়ে দেখেন৷''

সনৎ কুমার দাসের মন্তব্য , ‘‘এবার বুঝলেন, মিয়ানমার সরকার কেন এদের দেশ ছাড়া করেছে?  এদের নিজেদের কারণে নিজেরা মিয়ানমার ছাড়ছে এটা তো নিশ্চিত৷''

রবিনহুড চৌধুরীর প্রস্তাব, ‘‘রোহিঙ্গাদের অতি তাড়াতাড়ি তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর জোর প্রক্রিয়া চালানো হোক৷''

পাঠক রহমানও মনে করেন, ‘‘এসব অপরাধের পর রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হোক৷ প্রয়োজন হলে বল প্রয়োগ করতে হবে৷''

পাঠক শ্রেয়া রায়ও কিন্তু পাঠক রহমানের সাথে একমত৷

‘‘সাধে কি ওরা দেশ ছাড়া হয়েছে ! ওরা পুরো পার্বত্য চট্টগ্রাম ওদের কন্ট্রোলে নিয়ে গেছে,'' মন্তব্য মাহমুদ হোসেনের৷

তবে আশরাফ দেওয়ান ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘ অভাবে স্বভাব নষ্ট হয়৷ এত লাখ মানুষের মাঝে কিছু খারাপ থাকবে না, এমনটা ভাবাই

বোকামী ৷আমরা মূলত নারী ও শিশুদের জন্য সীমান্ত খুলেছিলাম, তাঁরা ঠিক আছে কিনা সেটাই দেখার বিষয়৷''

তবে  সাখাওয়াত সুমন ভিন্ন কথা বলছেন৷ তিনি লিখেছেন,  ‘‘টেকনাফ, কক্সবাজার থেকে বৌদ্ধ পুলিশ, ডাক্তারদের সরিয়ে দিন৷'' তাঁর ধারণা, বৌদ্ধরা রোহিঙ্গাদের সেবা করবে না, বরং ষড়যন্ত্র করবে৷

অন্যদিকে পাঠক দেবাশীষ রায় কিন্তু বিশ্বাসই করতে পারেন না যে, রোহিঙ্গারা এসব অপরাধমূলক কাজ করতে পারে৷ তিনি বলছেন, এ সবই নাকি ভূয়া খবর৷ কাজী ওমরেরও একই মত৷

আর আবদুল্লাহ আল মামুন রোহিঙ্গাদের পক্ষ নিয়ে লিখেছেন, ‘‘নিউইয়র্কে দৈনিক শতশত আপরাধ সংগঠিত হয়, রোহিঙ্গাদের মাসে ৩০টি অপরাধ, তার মানে দৈনিক ১ টি অপরাধ৷ এটা সংবাদ হওয়ার মতো কিছু না৷ ''

মোহাম্মদ সারোয়ার হোসেন কাউকে দোষ না দিয়ে বরং এত বড় সমস্যাটির সমাধান নিয়ে ভাবার পরামর্শ দিয়েছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘প্রায় দশ লক্ষ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অবস্থান করছে৷ এর মধ্যে ১০ হাজার অপরাধী থাকা কি অস্বাভাবিক? অপপ্রচার না করে পরিস্থিতি কিভাবে ট্যাকেল দেয়া যায়, সেটা নিয়ে আলোচনা করাই বুদ্ধিমানের কাজ৷''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন