রোহিঙ্গা নিপীড়নের কোনো প্রমাণ নেই: মিয়ানমারের সেনাপ্রধান | বিশ্ব | DW | 15.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

রোহিঙ্গা সংকট

রোহিঙ্গা নিপীড়নের কোনো প্রমাণ নেই: মিয়ানমারের সেনাপ্রধান

শুক্রবার জাপানের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম আশাহি শিম্বুন-এ দেওয়া এক দীর্ঘ সাক্ষাৎকারে তিনি এই দাবি করেন৷

২০১৭ সালে রোহিঙ্গা নিপীড়ন শুরুর  পর থেকে এই প্রথম আন্তর্জাতিক কোনো গণমাধ্যমে মিন অং সাক্ষাৎকার দিলেন৷ মিয়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে গণহত্যা সংঘটনের অভিযোগে দেশটির সেনাপ্রধান ও অপর পাঁচ শীর্ষ সেনা কমান্ডারকে বিচারের মুখোমুখি করার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের তদন্তকারীরা৷ তার জবাবেই এই দাবি মিয়ানমার সেনাপ্রধানের৷

তিনি বলেন, ‘‘বাংলাদেশে পালিয়ে যাওয়া শরণার্থীরা যা মন চায় বলেছে৷'' কোনো প্রমাণ ছাড়া বিশ্বব্যপী সবাই যে মিয়ানমারের সমালোচনা ও নিন্দা করছে এটি দেশটির জন্য অসম্মানজনক বলে মনে করেন তিনি৷ 

২০১৭ সালে রোহিঙ্গাদের ওপর সামরিক বাহিনীর অভিযানের কারণ জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘‘বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী মিয়ানমার সেনাঘাঁটিতে ভয়াবহ জঙ্গি হামলা করে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা৷ তাদের গ্রেপ্তারের লক্ষ্যেই অভিযান চালানো হয়েছিল৷ নীপিড়ন করা হয়নি৷''

এদিকে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক প্রধান ফিলিপ্পো গ্রান্ডি জানিয়েছেন, তিনি মিয়ানমারের সেনা প্রধানের কোনো সাক্ষাৎকার দেখেননি৷ তবে গত বছর জাতিসংঘের সঙ্গে একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করে মিয়ানমার সরকার৷ সেখানে রোহিঙ্গা নিপীড়নের বিষয়টি স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে৷ রোহিণঙ্গাদের নিজ আবাসে ফিরে যাওয়ার পূর্ণ অধিকারের বিষয়েও সম্মতি প্রকাশ করেছে মিয়ানমার৷

তিনি আরো বলেন, ‘‘আমরা রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কাজ করে যাচ্ছি৷ এটাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য৷ কারো ব্যক্তিগত সাক্ষাৎকার বিবেচনার বিষয় নয়৷''

এফএ/এসিবি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন