রোমাঞ্চকর নকআউট পর্বের জন্য প্রস্তুত হোন | খেলাধুলা | DW | 29.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ফুটবল

রোমাঞ্চকর নকআউট পর্বের জন্য প্রস্তুত হোন

ঐতিহাসিকভাবে ফুটবলের পরাশক্তি বলে পরিচিত দলগুলোর কেউই এবার বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে সন্তোষজনক খেলা দেখাতে পারেনি৷ তবে অন্য কয়েকটি দলের পারফরম্যান্স রোমাঞ্চকর এক নকআউট পর্বের আভাস দিচ্ছে৷

এখন পর্যন্ত আটটি দলের মধ্যে বিশ্বকাপের শিরোপাগুলো ভাগাভাগি হয়েছে৷ এর মধ্যে দুটি দল নকআউট পর্বে নেই৷ ইটালিতো এবার বিশ্বকাপ খেলারই সুযোগ পায়নি৷ আর বর্তমান চ্যাম্পিয়ন জার্মানিসবাইকে অবাক করে দিয়ে প্রথম পর্বেই বিদায় নিয়েছে৷

বাকি থাকলো ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ফ্রান্স, উরুগুয়ে, স্পেন আর ইংল্যান্ড৷ এর মধ্যে প্রথম চারটি দেশ আছে বিশ্বকাপ ড্র-এর এক অংশে৷ অর্থাৎ, এদের মধ্য থেকে একটি দলের ফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে৷ আর ড্র এর অন্যপাশে আছে স্পেন আর ইংল্যান্ড৷ তাদের মধ্য থেকেও একটি দলের ফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে৷ বিষয়টি ভালোভাবে বুঝতে নীচের টুইটটি খেয়াল করুন৷

তবে প্রথম পর্বে শক্তিশালী দল আর দ্বিতীয় স্তরের শক্তিশালী দলগুলোর খেলা বলে দিচ্ছে, শেষ পর্যন্ত সবকিছু হিসেব অনুযায়ী না হওয়ার আশঙ্কা বেশি৷ যেমন, গ্রুপ পর্বে ক্রোয়েশিয়ার অপরাজিত থাকার রেকর্ড আর স্পেনের দূর্বল ডিফেন্স (তিন ম্যাচে পাঁচ গোল খেয়েছে দলটি) বলছে, দল দুটি কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হলে ক্রোয়েশিয়ার জেতার সম্ভাবনা থাকবে৷

তেমনিভাবে ইংল্যান্ড যদি কলম্বিয়াকে হারিয়ে কোয়ার্টারে যেতে পারে, তাহলে সেখানে তাদের সুইডেনের সঙ্গে লড়তে হতে পারে৷ মনে রাখতে হবে, সুইডেন গ্রুপ পর্বে মেক্সিকোকে তিন গোলে হারিয়েছে৷ এছাড়া ইটালির এবার বিশ্বকাপে আসার পথে বাধা ছিল এই সুইডেনই৷ গ্রুপ পর্বে জার্মানির সঙ্গে খেলায় হেরে গেলেও সুইডেনের ক্ষমতার পরিচয় পাওয়া গেছে৷ ফলে কোয়ার্টারের সম্ভাব্য খেলায় ইংল্যান্ড সহজে সুইডেনকে পেরিয়ে যাবে, তা ভাবার যুক্তি নেই৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

অর্থাৎ ক্রোয়েশিয়া আর সুইডেন যদি তাদের গ্রুপ পর্বের পারফর্ম্যান্স ধরে রাখতে পারে, তাহলে তাদের বিশ্বকাপের ফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ সেক্ষেত্রে রাশিয়া বিশ্বকাপ একটি নতুন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন উপহার দিলেও দিতে পারে৷

এবার ড্র এর অন্য পাশটার আলোচনায় যাওয়া যাক৷ সেখানে সাবেক চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ফ্রান্স আর উরুগুয়ের সঙ্গে আছে বর্তমান ইউরো চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল, মেক্সিকো আর জাপান৷ এর মধ্যে মেসির আর্জেন্টিনা আর গ্রিজমানের ফ্রান্স দ্বিতীয় পর্বেই মুখোমুখি হচ্ছে৷ ফলে সেখানেই সাবেক এক চ্যাম্পিয়ন ঝরে পড়বে

গ্রুপ পর্বের খেলায় আর্জেন্টিনা ও ফ্রান্স কেউই প্রত্যাশা অনুযায়ী খেলতে পারেনি৷ ‘‘আমরা শুরুটা সেরাভাবে করতে পারিনি৷ আমরা আসলেই একটি বিশৃঙ্খল অবস্থায় ছিলাম,'' প্রথম পর্ব শেষে বলেন আর্জেন্টিনার মাসচেরানো৷ আর ফ্রান্সের বেশ কয়েকজন মেধাবী খেলোয়াড় থাকলেও কোচ দিদিয়ে দেশঁ এখন পর্যন্ত তাঁদের সেরাটা বের করে আনতে পারেননি৷

প্রথম পর্বে একমাত্র উরুগুয়ে তাদের জালে কোনো বল প্রবেশ করতে দেয়নি৷ সাম্প্রতিক বিশ্বকাপগুলোতে দেখা গেছে, যে দল ভালোভাবে তাদের গোলপোস্ট সামলাতে পেরেছে, তারাই সফল হয়েছে৷ যেমন ২০১০ সালের চ্যাম্পিয়ন স্পেন মাত্র দুইবার তাদের জালে বল ঢুকতে দিয়েছিল৷

দ্বিতীয় পর্বে উরুগুয়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগালের মুখোমুখি হবে৷ এই খেলায় যে জিতবে তার সঙ্গে খেলবে আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স ম্যাচের বিজয়ী দল৷ ফলে কোয়ার্টারে মেসি-রোনাল্ডো কিংবা মেসি-সুয়ারেজের দেখা হতে পারে৷

দ্বিতীয় পর্বের আরেক খেলায় মেক্সিকোর মুখোমুখি হবে ব্রাজিল৷ গ্রুপ পর্বের শেষ খেলায় ব্রাজিল ছন্দ ফিরে পাওয়ার আভাস দিয়েছে৷ সেটি আরেকটু বাড়াতে পারলে কোয়ার্টারের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ বেলজিয়ামকে টপকাতে পারবে তারা৷ সেক্ষেত্রে বিশ্ববাসী হয়ত সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল দ্বৈরথ দেখতে পাবেন৷

কিন্তু তার আগে কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ বেলজিয়ামকে ছোট করে দেখার কারণ নেই৷ কেননা, তারায় ভরপুর বেলজিয়াম এবার বিশ্বকাপ জিতে নিলেও আশ্চর্য হওয়ার কিছু থাকবে না৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়