রোবট নয়, মানুষের হাতেই খুনের অধিকার | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 21.11.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অস্ট্রিয়া

রোবট নয়, মানুষের হাতেই খুনের অধিকার

অ্যালগোরিদমের বদলে মানুষের হাতেই থাকুক ‘কিলার রোবট’ বা খুনি রোবটের নিয়ন্ত্রণ, মতামত অস্ট্রিয়া কর্তৃপক্ষের৷ এবিষয়ে আন্তর্জাতিক নীতি প্রণয়নের ডাক দিয়েছে তারা৷

যুদ্ধক্ষেত্রে ‘কিলার রোবট' বা খুনি রোবটের ব্যবহার নিয়ে আলোচনা বেশ কিছু বছর ধরেই চলে আসছে৷ অস্ট্রিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রী আলেকজান্ডার শালেনবের্গের মন্তব্যের পর নতুন করে ইউরোপে আলোচিত হচ্ছে বিষয়টি৷

শালেনবের্গ জার্মান পত্রিকা ‘বিল্ড আম জনটাগ'-কে বলেন, ‘‘পৃথিবীর যুদ্ধক্ষেত্রে এই খুনি রোবটের আবির্ভাব ঘটার আগেই আমাদের এ বিষয়ে কিছু নিয়ম তৈরি করতে হবে৷’’ শুধু এই রোবটগুলির ক্ষেত্রেই নয়, এমন নির্দিষ্ট নীতি প্রণয়ন করতে হবে ল্যান্ডমাইন ও গুচ্ছ বোমা ব্যবহারের ক্ষেত্রেও, বলেন শালেনবের্গ৷

এই নীতি প্রণয়নের উদ্দেশ্যে ভিয়েনায় ২০২১ সালে একটি সম্মেলনের আয়োজন করবে অস্ট্রিয়ান কর্তৃপক্ষ৷ শালেনবের্গ জানান, এই সম্মেলন হবে  ‘‘বিশ্বজুড়ে যুদ্ধক্ষেত্রে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার নিয়ে নীতি নির্ধারণের আলোচনার'' সূত্রপাত৷

কূটনৈতিক স্তরে এমন নীতি নিয়ে এর আগে আলোচনা হয়নি বলে জানান শালেনবের্গ৷ ‘‘এই সম্মেলন থেকে বিভিন্ন রাষ্ট্র, বিশেষজ্ঞ ও রেড ক্রসের মতো বেসরকারি সংস্থাগুলিকে সাথে নিয়ে একটি আন্দোলন গড়ে তোলা হবে,’’ বলেন অস্ট্রিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী৷

যে কারণে প্রয়োজন এই আন্দোলন

শালেনবের্গের মত, যুদ্ধক্ষেত্রে যেসব ধরণের সিদ্ধান্ত নিতে হয়, তা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাচালিত যন্ত্রের হাতে ছেড়ে দেওয়া উচিত নয়৷ শালেনবের্গ বলেন, ‘‘জীবন-মৃত্যু বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত শেষ পর্যন্ত একজন মানুষেরই হাতে থাকা উচিত৷ সকল নৈতিক বোঝাপড়ার মাধ্যমে সেই সিদ্ধান্ত মানুষই নেবে, কোনো সংখ্যার ভারে চলা অ্যালগোরিদম তা নেবে না৷''

স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র ব্যবহারের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে অবস্থান করে বিশ্বের তিন ‘হেভিওয়েট' সামরিক শক্তি, ইসরায়েল, রাশিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ এদের বিপরীতে রয়েছে ‘স্টপ কিলার রোবটস' প্রচারণা, যাদের পাশে দাঁড়িয়েছে ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তানসহ মোট ৬৬টি রাষ্ট্র৷ এরমধ্যে, ৩০টি সদস্যরাষ্ট্র কিলার রোবটের সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা দাবি করেছে৷ (সূত্র: স্টপকিলাররোবটস)

রিচার্ড কনর/এসএস 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন