রূপকথা ভুলে সেই রিচেন আজ ‘নেকড়ের শহর’ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 04.03.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

রূপকথা ভুলে সেই রিচেন আজ ‘নেকড়ের শহর’

১৩ বছর আগে শহরটিতে সবাই বসেছিলেন নেকড়ের কবল থেকে বাঁচার উপায় খুঁজতে৷ নেকড়ে থাকলে জীবন বিপন্ন - এমন ভয় ছিল প্রায় সবার মনেই৷ জার্মানির সেই রিচেনেরই অন্য নাম এখন ‘নেকড়ের শহর’৷

আতঙ্ক নয়, মাংসাশী এই প্রাণীকে কৃতজ্ঞচিত্তে পাশে রেখেই শান্তিতে বাস করছে সবাই৷

অসাধারণ কাজের প্রভাবটাও হয় সুদূরপ্রসারি৷ তাই গ্রিম ভাইয়েরা কবে লিখে গিয়েছিলেন ‘বিগ ব্যাড উল্ভস'৷ সেই থেকে নেকড়ে আদতে যতটা তার চেয়ে অনেক বেশি ভীতিকর হয়ে আছে জার্মানদের মাঝে৷ ১৩ বছর আগে বহুকাল পর আবার নেকড়েদের ফিরে আসতে দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিল সাবেক পূর্ব জার্মানির শহর রিচেনের মানুষ৷ এখন হাতে গোনা কয়েকটা হলে কী হবে, ধীরে ধীরে বংশবিস্তার করে নেকড়েরা পরে মানুষ ধরে ধরেই খাবে - এমন ভয় যে অমূলক তা বোঝাতে, সবার মনে আস্থা প্রতিষ্ঠা করতে অনেক কাজ করতে হয়েছে নেকড়ে বিষয়ক স্থানীয় তথ্যকেন্দ্রকে৷ সেখানকার জীববিজ্ঞানী ভানেসা লুডভিশ জানালেন এখন আর মানুষের মনে ভয় নেই৷ তাঁরা জেনে গেছেন নেকড়েরা বয়স দু বছর হবার আগেই মা-বাবাকে ছেড়ে চলে যায়, খুঁজে নেয় নিজের জন্য অন্য রাজত্ব৷

বিশাল পাইন বন, যেখানে রয়েছে হরিণ, শূকরসহ অনেক বন্য প্রাণী, আছে বেশ কিছু হ্রদ - এসবের মাঝেই ছোট্ট, সুন্দর শহর রিচেন৷ মাত্র ৩ হাজার ৭০০ মানুষের এই শহরে সামরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের গোলাগুলি কিংবা কয়লা খনির শব্দে কিছুই যায় আসে না নেকড়েদের৷ বনাঞ্চলের বিশেষ জায়গাগুলোতে রয়েছে বিদ্যুতায়িত তারের বেষ্টনী৷ যখন তখন চাইলেও যে তারা জনবসতিতে চলে আসবে তার উপায় নেই৷ তবু যে গভীর রাতে শিকারের খোঁজে পা টিপে টিপে আসে না তা কিন্তু নয়৷ তবে গত ১৩ বছরে একবারও কোনো মানুষের ওপর হামলা চালায়নি৷ নেকড়েদের প্রিয় শিকার গবাদি পশু৷ রিচেনের ছাগল আর ভেড়াদের জন্য সবচেয়ে খারাপ সময় ছিল গত বছর৷ এক বছরে অন্তত ৫০ বার হামলা চালিয়েছে নেকড়েরা৷ ৩৩টি ছাগল আর ভেড়া হারিয়েছিলেন এক কৃষক৷ তারপরও কোনো দুঃখ নেই তাঁর৷ নেকড়ে দেখতে শত শত মানুষ আসছে রিচেনে৷ আরো কতভাবে যে উপকার করছে নেকড়েরা৷ কয়েকটা ভেড়া আর ছাগল মেরেছে বলে নেকড়েদের ওপর রাগ পুষে রাখলে চলে? তবে ওই অঞ্চলের শিকারীরা খুব রেগে আছেন৷ বনে শিকার করতে গিয়ে প্রায়ই খালি হাতে ফিরতে হয় তাঁদের৷ কেন? শিকার করার মতো সব প্রাণীই যে খেয়ে ফেলে নেকড়েরা, শিকারীদের জন্য কিছু থাকলে তো!

এসিবি/এসি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন