রুশ রাষ্ট্রদূতকে গুলির পর এবার মার্কিন দূতাবাসে গুলি | বিশ্ব | DW | 20.12.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

তুরস্ক

রুশ রাষ্ট্রদূতকে গুলির পর এবার মার্কিন দূতাবাসে গুলি

দু'টো ঘটনাই ঘটেছে তুরস্কের রাজধানী আংকারায়৷ রুশ রাষ্ট্রদূতকে যেখানে হত্যা করা হয় ঠিক তার উল্টোদিকে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাসের গেটে একজন গুলি চালিয়েছে৷

দু'টো ঘটনার মধ্যে কয়েক ঘণ্টার ফারাক ছিল৷ মার্কিন দূতাবাসের সামনে গুলির ঘটনা ঘটে স্থানীয় সময় রাত তিনটা ৫০ মিনিটে৷ এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, ‘‘এক ব্যক্তি আংকারার মার্কিন দূতাবাসের প্রধান গেটে গিয়ে বন্দুক বের করে গুলি চালায়৷''

এই ঘটনার পর দূতাবাস সহ ইস্তাম্বুল ও আদানার মার্কিন কনসুলেটের স্বাভাবিক কার্যক্রম মঙ্গলবার বন্ধ থাকবে বলে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে৷

পুলিশের আইডি ব্যবহার করেছে

তুরস্কের সরকারপন্থি পত্রিকা সাবাহ বলছে, তুরস্কের রুশ রাষ্ট্রদূত আন্দ্রেই কারলভকে যে ব্যক্তি গুলি করে হত্যা করেছে সে পুলিশের আইডি ব্যবহার করে অনুষ্ঠানস্থলে ঢুকেছিল৷ একটি আলোকচিত্রী প্রদর্শনীর উদ্বোধন করতে গিয়ে খুন হন কারলভ৷ গুলি চালনাকারীর নাম মেভলুত মের্ত আলতিনতাস৷ ২২ বছর বয়সি আলতিনতাস গত আড়াই বছর ধরে আংকারার দাঙ্গাবিরোধী পুলিশ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন৷ ঘটনার সময় আলতিনতাস ‘আলেপ্পো' ও ‘আল্লাহু আকবর' বলে চিৎকার করেছে৷ পরে পুলিশের গুলিতে সে মারা যায়৷

আলতিনতাস যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী ফেতুল্লাহ গুলেনের অনুসারী হতে পারে বলে মনে করছেন আংকারার মেয়র মেলিহ গোচেক৷ নিজের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে তিনি এই মন্তব্য করেন৷ অন্য কোনো তুর্কি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা অবশ্য গোচেকের মতো না বললেও সরকারপন্থি গণমাধ্যমে গুলেন সম্পৃক্ততার অভিযোগ আনা হয়েছে৷ কর্তৃপক্ষ এই বিষয়ে তদন্ত করছে বলে জানিয়েছে ‘হুরিয়েত' পত্রিকা৷ উল্লেখ্য, গুলেনের বিরুদ্ধে জুলাই মাসের অভ্যুত্থানে মদদ দেয়ার অভিযোগ এনেছে তুরস্ক৷ গুলেন অবশ্য এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন৷ তিনি সোমবার রুশ রাষ্ট্রদূতকে হত্যার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন৷

জেডএইচ/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন